advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভারত গেলেন মুমিনুলরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:১৩
advertisement

লড়াইটা একের সঙ্গে নয়ের। আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারত আছে সবার ওপরে। বাংলাদেশের অবস্থান নয়ে। সাদা জার্সিতে কোহলিরা উজ্জ্বল। দেশের মাটিতে তারা শক্তিশালী দল। ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে বাংলাদেশকে। টাইগারদের সামনে চ্যালেঞ্জ। অবশ্য চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত টাইগাররা।

টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়িয়েছে ভারত-বাংলাদেশ সিরিজ। শেষ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে রবিবার। ওই ম্যাচেই নিষ্পত্তি হবে শিরোপার। এরপর টেস্ট সিরিজ। ১৪ নভেম্বর ইন্দোরে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। ২২ নভেম্বর থেকে কলকাতায় শুরু হবে সিরিজের শেষ টেস্ট।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। ভারত সফরে বাংলাদেশের টেস্ট দলের নেতৃত্বভার তুলে দেওয়া হয়েছে মুমিনুল হকের হাতে। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক ঘটবে তাঁর। গতকাল দলের সঙ্গে যোগ দিতে ভারত গেছেন মুমিনুল। শুধু মুমিনুল একাই নন একই ফ্লাইটে ভারতের উদ্দেশে উড়াল দেন টেস্ট দলে থাকা সাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, ইমরুল কায়েস, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, এবাদত হোসেন ও আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী। বাংলাদেশ দল এখন নাগপুরে। মুমিনুল হকরা কলকাতা হয়ে দলের সঙ্গে নাগপুরে যোগ দেবেন।

ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ সহজ হবে না। চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। তার ওপর বাংলাদেশ দলে নেই নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব। ব্যক্তিগত কারণে এ সফর থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন তামিম ইকবালও। দেশ ছাড়ার আগে আশার কথাই শোনালেন তরুণ খেলোয়াড়রা। ওপেনার সাদমান ইসলাম জানালেন, বাড়তি কোনো চাপ নিয়ে তারা ভারত যাচ্ছেন না। তিনি বলেন, ‘ওরা শক্তিশালী দল। তবে ওদের বোলারদের নিয়ে অত চিন্তা করছি না। আমরা আমাদের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলব।’ সাকিবের না থাকাটা দলের শক্তি কিছুটা হলেও কমিয়ে দিয়েছে। সাদমান তা মানছেন। তবে বাকি সতীর্থদের ওপর আস্থা রাখছেন। তিনি বলেন, ‘মিরাজ ভাই, তাইজুল ভাই, নাঈমরা আছে। আশা করছি কিছুটা হলেও পুষিয়ে নেওয়া যাবে।’ প্রথমবার টেস্ট দলে ডাক পাওয়া সাইফ হাসান জানান, সুযোগ পেলে ভালো খেলার চেষ্টা করবেন। টপ-অর্ডারের এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘ওদের বিপক্ষে নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে ইতিবাচক ফল পাওয়া সম্ভব।’ এর আগে মুমিনুল হক জানিয়েছিলেন, ভারত সিরিজে চ্যালেঞ্জ আছে অনেক। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মনে করেন, চ্যালেঞ্জ আসবেই। এটা নিতে হবে।

ভারত ও বাংলাদেশ দুই দলের জন্যই দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি ঐতিহাসিক। কেননা, কলকাতার ইডেন গার্ডেনসের এই ম্যাচের মধ্য দিয়েই দিবারাত্রির ক্রিকেটে পথ চলা শুরু করবে দুদল। এ টেস্ট খেলা হবে গোলাপি বলে। বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো গোলাপি বলে টেস্ট খেলবে। খেলোয়াড়রা অনেক রোমাঞ্চিত।

advertisement