advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলে’ ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকবে ‘ব্রাক’

নিজস্ব প্রতিবেদক
৯ নভেম্বর ২০১৯ ২০:২৪ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ২০:২৫
advertisement

বঙ্গোপসাগর থেকে উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’।  বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে পাওয়া তথ্য থেকে জানা যায়, ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিমবঙ্গ ও খুলনা উপকূল দিয়ে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানবে। এ সময় বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। উপকূলের নয়টিজেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, ভোলা, ঝালকাঠী ও বরিশাল ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। তবে সাগরে ঝোড়ো হাওয়ার বেগ আরও বেশি থাকবে।

ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানতে পারে এমন এলাকায় এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে ব্র্যাক।  প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, ভোলা, ঝালকাঠী ও বরিশাল,এই জেলাগুলো বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। স্থানীয় সরকার, সাইক্লোন প্রিপেয়ার্ড প্রোগ্রামের (সিপিপি)  সঙ্গে সেখানে এরই মধ্যে কাজ শুরু করছে ব্র্যাকের কর্মীরা। ওই অঞ্চলগুলোতে কমিউনিটি রেডিওর মাধ্যমে বার্তা পৌছে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া কক্সবাজারের উখিয়া এবং টেকনাফ এলাকার বিভিন্নজনেগাষ্ঠীর কাছে সিপিপি এবং ব্র্যাকের সেচ্ছাসেবকরা নিরাপদে থাকার বার্তা দিয়েছে।  ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা কর্মসূচি ও কমিউনিকেশন ফর ডেভলপমেন্ট সেচ্ছাসেবকরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই সচেতনতামূলক বার্তা পৌছে দিয়েছে।

ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির পরিচালক সাজেদুল হাসান বলেন, ‘যেহেতু এটা সাইক্লোনের মৌসুম, তাই ব্র্যাকের নিয়ম অনুযায়ী দুই-তিন সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন জায়গায় ঘূর্ণিঝড়ের প্রস্তুতি মহড়াও ইতিমধ্যেই দেওয়া হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবেলায় আমাদের স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর আছে, সেটা মোতাবেক দুর্যোগ মোকাবেলায় আমাদের ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিম কাজ শুরু করে দিয়েছে।  সেই সাথে আমাদের একটি বিশেষায়িত মেডিকেল দল কাজ করছে। ’

সাজেদুল হাসান আরও বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য, ৭২ ঘন্টার মধ্যে যারা নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে অথবা যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি এবং জরুরি চিকিৎসা সেবা পৌছে দেওয়া। ’

ব্র্যাক মানবিক সহায়তা কর্মসূচির প্রধান ইমামুল আজম শাহিঅতি দ্রুত মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে চলে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানান।  বিশেষক্ষেত্রে যদি আশ্রয় কেন্দ্রে না যেতে পারেন তাহলে আশে পাশে যেই জায়গাগুলো নিরাপদ সেখানে চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন ব্র্যাকের এই ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।

advertisement
Evall
advertisement