advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স) আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
১০ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১০ নভেম্বর ২০১৯ ১২:৪৬
advertisement

আজ ১২ রবিউল আউয়াল রবিবার, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স)। বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (স)-এর জন্ম ও ওফাত দিবস। মুসলিম বিশ্বের কাছে এই দিনটি অত্যন্ত পবিত্র ও তাৎপর্যপূর্ণ।

প্রায় ১৪০০ বছর আগে ৫৭০ খ্রিস্টাব্দের ১২ রবিউল আউয়াল আরবের মরুপ্রান্তরে মা আমিনার কোল আলোকিত করে জন্ম নিয়েছিলেন নবীয়ে রহমত (স)। ৬৩২ খ্রিস্টাব্দের এই দিনে মাত্র ৬৩ বছর বয়সে তিনি ইন্তেকাল করেন। আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার দূর করে তৌহিদের মহান বাণী নিয়ে এসেছিলেন এই মহামানব। প্রচার করেছেন শান্তির ধর্ম ইসলামের। তাঁর আবির্ভাব এবং ইসলামের শান্তির ললিত বাণীর প্রচার সারাবিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করে। প্রতিষ্ঠা করে ন্যায় ও ইনসাফের, মানবতা ও কল্যাণের।

ইসলাম ধর্মমতে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হজরত মুহাম্মদ (স) শেষ নবী। সারা আরব জাহান যখন পৌত্তলিকতার অন্ধকারে ডুবে গিয়েছিল, তখন মহান আল্লাহপাক তাঁর প্রিয়নবী মুহাম্মদকে (স) সমগ্র জগতের জন্য রহমতস্বরূপ প্রেরণ করেন। তিনি ৪০ বছর বয়সে নবুয়ত লাভ করেন। এরপর বিশ্ববাসীকে মুক্তি ও শান্তির পথে আহ্বান জানান। সব ধরনের কুসংস্কার, গোঁড়ামি, অন্যায়, অবিচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে মানবসত্তার চিরমুক্তির বার্তা নিয়ে এনেছিলেন তিনি। মহানবী (স) দীর্ঘ ২৩ বছর এ বার্তা প্রচার করে ৬৩ বছর বয়সে ইহলোক ত্যাগ করেন।

ঈদে মিলাদুন্নবী (স) উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক বাণী দিয়েছেন। এ উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে মহানবী (স) এর ওপর আলোচনা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল।

এদিন সরকারি ছুটি। তবে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর কারণে ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে নেওয়া কর্মসূচিতে পরিবর্তন আসতে পারে। ‘আশেকান মাইজভা-ারী এসোসিয়েশন’ এর উদ্যোগে আজ সকাল ৯টা থেকে ঢাকার শাহজাহানপুর রেলওয়ে ময়দানে ওয়াজ মাহফিল হবে। গতকাল থেকে জাকের পার্টি মিলাদ মাহফিলসহ নানা ধরনের কর্মসূচি পালন করছে।

advertisement