advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আমাদের জয়ের প্রত্যাশা নেই তাই চাপও নেই : মুমিনুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক,ইন্দোর থেকে
১৩ নভেম্বর ২০১৯ ১৭:২৬ | আপডেট: ১৩ নভেম্বর ২০১৯ ১৯:৪৬
সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন মুমিনুল হক। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

ভারতের বিপক্ষে সাদা পোশাকে খেলতে নামার আগেই বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক বলে দিলেন ম্যাচ জয়ের কোনো প্রত্যাশা নেই। আগামীকালে ভারতের মধ্যপ্রদেশে অবস্থিত ইন্দোরের হল্কার স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট।

এই টেস্ট ম্যাচকে সামনে রেখে আজ বুধবার দুপুরে হল্কার স্টেডিয়ামে এসে এসব কথা বলেন মুমিনুল হক।

বাংলাদেশ দলের এই ক্রিকেটার বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে আমাদের কোনো চাপ নাই। কারণ আমাদের কোনো এক্সপেকটেশন ওইরকম নেই। আপনারাও জানেন, আমরাও জানি, সবাই জানে। আমাদের ওইরকম প্রেশারও নেই যে আমাদের জিততে হবে। আমরা আমদের ভালো ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করব।’

মুমিনুল একটা কথাই প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করেছেন বারবার। তা হলো ভালো খেলার চেষ্টা করবেন তারা। তার মতে জয়ের প্রত্যাশা নিয়ে মাঠে নামলে অনেক চাপও থাকে। তাই এই চাপ তিনি নিতে চান না।

সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হওয়ার পর ভারত সফরে আসার একদিন আগে মুমিনুলকে টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তিনি দেশের ক্রিকেটে ১১ তম টেস্ট অধিনায়ক। অধিনায়ক হিসেবে কেমন অভিজ্ঞতা? কেমন লাগছে?

মুমিনুল বলেন, ‘এটা আমার জন্য অনেক এক্সাইটমেন্ট। জুনিয়র হিসেবে এটা আমার জন্য খুব বড় একটা অপরচুনিটি। আল্লাহ তাআলার কাছে শুকরিয়া এরকম অপরচুনিটি সবাই পায় না। তো আমি চাই যে অপরচুনিটিটা খুব ভালোভাবে কাজে লাগাব। এই জিনিসটা কাজে লাগানোর জন্য চেষ্টা করব দেশের জন্য। এরকম সুযোগতো সবাই পায় না তাই আমি জিনিসটা চেষ্টা করব।’

একই দলে আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিমের মতো দুইজন সিনিয়র খেলোয়াড়। দুইজনেরই টেস্টে অধিনায়কত্ব করার অভিজ্ঞতা আছে। তাদের থেকে নিয়মিত শিখেন বলে জানিয়েছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। অধিনায়ক হিসেবে মুমিনুল কাজ করবেন পরিস্থিতি অনুযায়ী।

‘এই মুহূর্তে আমি বলতে পারছি না। এটা নির্ভর করবে পরিস্থিতির ওপরে। কোন পরিস্থিতিতে আমি কোন সিদ্ধান্ত নিবো সেটা তখনই বলা যাবে। রক্ষণাত্মক হয়েও আক্রমণ করা যায় আবার আক্রমণাত্মক হয়েও রক্ষণ করা যায়,’ নিজের অধিনায়কত্বের দর্শন নিয়ে এভাবেই বলছিলেন মুমিনুল।

advertisement