advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তিন দিনেই টাইগারদের বড় হার

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৬ নভেম্বর ২০১৯ ১০:৩১ | আপডেট: ১৬ নভেম্বর ২০১৯ ২০:৩৬
লিটন দাসের বিপরীতে জাদেজাদের আপিল ছবি : বিসিসিআই
advertisement

ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে তিন দিন শেষ হওয়ার আগেই ইনিংস ও ১৩০ রানের বড় ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে ভারতের দেওয়া ৩৪৩ রানের লিডে খেলতে নেমে বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে গুটিয়ে যায় ২১৩ রানে। সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন মুশফিক। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ চার উইকেট নেন মোহাম্মদ শামী।   

লড়াই করে সাজঘরে মুশফিক

লড়াই করে শেষ পর্যন্ত হার মানতে হলো মুশফিকুর রহীমকে। টাইগারদের হয়ে একমাত্র লড়াইটা চালিয়ে যান তিনি। তার ব্যাট থেকে আসে ১৫০ বলে ৬৪ রান। অশ্বিনের বলে ক্যাচ তুলে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

ভাগ্য খারাপ মিরাজের

মুশফিকের সঙ্গে জুটি গড়ে কী দুর্দান্তই না খেলছিলেন মেহেদী মিরাজ। কিন্তু ভাগ্য সহায় না হলে যা হয়। উমেষ যাদবের বল কনুইতে লেগে সোজা স্টাম্পে। ৩৮ রান করে মিরাজ ফেরেন সাজঘরে।

বড় হারের পথে বাংলাদেশ

মাহমুদউল্লাহ আউট হওয়ার পরে লিটন দাস ক্রিজে এসে কী সাবলীল খেলাটাই না খেলছিলেন। মাত্র ৩৯ বলে ছয়টি চারের মারে ৩৫ রান করে ফেলেছিলেন। তারপর অশ্বিনের বলে ক্যাচ প্র্যাকটিস করিয়ে ফেরেন সাজঘরে। এখন একমাত্র ভরসা মুশফিক। দলের ছয় ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ইনিংস ও বড় রানে হারের পথে বাংলাদেশ।

সাজঘরে মাহমুদউল্লাহও

ধীরে ধীরে সেট হচ্ছিলেন ক্রিজে। কিন্তু ইনিংস দীর্ঘ করতে পারেনি। লাঞ্চ বিরতির পর মোহাম্মদ শামীর বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে সাজঘরে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তিনি ১৪ রানে আউট হয়ে গেলে ভাঙে মুশফিকের সঙ্গে ২৮ রানের জুটি।

তিন পেসারের কাছে অসহায় বাংলাদেশ

প্রথম ইনিংসেও ভারতের তিন পেসার মোহাম্মদ শামী, ইশান্ত শর্মা ও উমেষ যাদব মিলে সাত উইকেট নিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ। দ্বিতীয় ইনিংসেও শুরু থেকেই তিন পেসার নাকানি-চুবানি খাওয়াচ্ছেন টাইগার ব্যাটসম্যানদের। দ্বিতীয় ইনিংসের ১৪ ওভার না পেরোতেই শুরুর চার ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে পাঠিয়েছেন তারা।

শুরুর আগেই শেষ দুই ওপেনার

বাংলাদেশ এই ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছে আগেই। এখন শুধু ক্রিজে টিকে থেকে হারের ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করা। কিন্তু ৩৪৩ রানের লিড মাথায় নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে পরপর দুই ওভারে বোল্ড হয়ে দুই ওপেনার ফিরে যান সাজঘরে। দুজনেই আউট হয়েছেন ছয় রান করে।

বাংলাদেশের সামনে অগ্নিপরীক্ষা

ভারত চাইলে হয়তো তাদের লিড আরও বাড়াতে পারতো। ৩৪৩ রানের বিশাল লিড দিয়েই দ্বিতীয় দিন শেষ করেন জাদেজা-যাদব। কিন্তু শনিবার তৃতীয় দিন আর ব্যাট করতে নামেননি স্বাগতিকরা। বাংলাদেশকেই ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে। ইনিংস ও রানের ব্যবধানে হার এড়াতে হলে ভারতীয় বোলারদের সামনে অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে টাইগারদের।

ভারতের লিড ৩৪৩

প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে টাইগার বোলারদের নির্বিষ বানিয়ে ভারতীয় ওপেনার মায়াংক আগারওয়াল ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন। তার ব্যাটে ভর করে ভারত প্রথম ইনিংসে ৪৯৩ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করে। বাংলাদেশেকে লিড দিয়েছে ৩৪৩ রানের। হাতে চার উইকেট থাকলেও তৃতীয় দিন বাংলাদেশকেই ব্যাটিংয়ে পাঠান কোহলি।

দেড়শতেই শেষ বাংলাদেশ

১০ রানের ব্যবধানে শেষ পাঁচ উইকেট হারিয়ে ১৫০ রানেই থেমে যায় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। ১৪০ রানের মাথায় মুশফিক ৪৩ রানে আউট হয়ে গেলে তাসের ঘরের মতো ভেঙে যায় টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপ। সর্বোচ্চ ৪৩ রান মুশফিকের ব্যাট থেকেই আসে। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ শামী। দুটি করে উইকেট নিয়েছেন অশ্বিন, যাদব ও ইশান্ত শর্মা।

ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে এবাদত-রাহী

ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের মধ্য দিয়ে ইতিহাসে নাম লেখালো বাংলাদেশ। এই প্রথম টাইগাররা খেলছে টেস্টের বিশ্বকাপ খ্যাত আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ম্যাচটি শুরু হয়েছে। ভারতের মধ্যপ্রদেশে অবস্থিত ইনদোরের হলকার স্টেডিয়ামে এই ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।

advertisement