advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সন্তান জন্মানোর ১০ মিনিট আগে জানলেন তিনি গর্ভবতী!

অনলাইন ডেস্ক
১৬ নভেম্বর ২০১৯ ১৩:১০ | আপডেট: ১৬ নভেম্বর ২০১৯ ১৩:১০
ছবি: এরিনের ইন্সটাগ্রাম থেকে নেওয়া
advertisement

সন্তান জন্ম দেওয়ার ১০ মিনিট আগে মা জানতে পারলেন তিনি গর্ভবর্তী। অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী এরিন ল্যাংমেড দাবি করলেন এমনই অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে তার সঙ্গে। ইন্সটাগ্রামে নিজের হাস্যোজ্জ্বল কিছু সেলফি পোস্ট দিয়েই এ ঘটনার কথা জানালেন ২৩ বছর বয়সী এ মডেল। গর্ভবতী সময়ের সপ্তাহগুলো পার করে ফেলার ছবিও দিয়েছেন। যেখানে নেই কোনো শারীরিক পরিবর্তন, এক বারের জন্যও পেটে কোনো নড়াচড়া হয়নি।

সেভেন নিউজের বরাতে ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে জানা যায়, এরিন তার শিশু কন্যাটির নাম দিয়েছেন ইসলা। প্রায় সপ্তাহ খানেক আগে এরিন ও তার সঙ্গী ড্যান কার্টি কম্বলে জড়ানো তাদের নবজাতক শিশুকন্যাকে কোলে নিয়ে ইন্সটাগ্রামে ছবি পোস্ট করেন। তাতে সবাই অবাক বনে যান। 

এরপরই এরিন ওই ঘটনার কথা সবাইকে জানান। বর্ণনা দিতে গিয়ে এরিন বলেন, ‘আমি চিৎকার করেই বেহুঁশ হয়ে যাই। কারণ, আমার ধারণাই ছিল না এ বিষয়ে। ছিল না কোনো প্রস্তুতিও। হঠাৎ তলপেটে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব করি আর মিনিটখানেক যেতে না যেতেই বাচ্চার কান্নার শব্দে বাকশূন্য হয়ে যাই।’

এরিনের জন্ম দেওয়া শিশুকন্যাটি প্রায় আট পাউন্ডের হলেও তার দেহের গড়নের কোনো পরিবর্তনই হয়নি। শুধু দেহের ওজনটা একটু বেড়েছিল তাও সেটা স্বাভাবিকই মনে হয়েছিল এরিনের কাছে।

এদিকে, ঘটনার সময় এরিনের সঙ্গী ড্যান কার্টি সেখানে ছিলেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন সেই মুহূর্তের অভিজ্ঞতার কথা- ‘নিজের হৃদস্পন্দন শুনতে পাচ্ছিলাম আমি, নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছিল। এরিন সন্তানসম্ভবা, এ বিষয়ে আমাদের কোনো ধারণাই ছিল না। বাথরুমে গিয়ে দেখি বাবা হওয়ার খবর শোনার আগেই আমি বাবা হয়ে গেছি! এরিনের সারা শরীর নীলবর্ণ ধারণ করায় আমি প্রচণ্ড ভয়ও পেয়ে যাই।’

তবে এরিন ঠিক কতমাস গর্ভবতী ছিলেন সে সম্পর্কে নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ড্যান। কেননা তারা তো কিছু জানতেনই না।

এ ধরনের শিশু জন্মের ঘটনা দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করেছেন ইউনিভার্সিটি অব নিউ মেক্সিকোর প্রফেসর ড. মারকো দেল জুডিচে। তিনি জানান, এ ধরনের গর্ভাবস্থাকে বলা হয় ‘ক্রিপটিক প্রেগন্যান্সি’। তবে, জনসাধারণের মধ্যে এটি ‘সারপ্রাইজ বার্থ’ হিসেবেই পরিচিত। চিকিৎসা বিজ্ঞানে আজও এর রহস্য উদ্ভাবন হয়নি। তবে, দিনে দিনে এর সংখ্যা বাড়ছে। 

গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি আড়াই হাজারে একজন নারী ‘সারপ্রাইজ বার্থ’র মুখোমুখি হন। আর ৪৭৫ জনে একজন গর্ভাবস্থার ২০ সপ্তাহ পেরিয়ে গেলে ধরতে পারেন তিনি সন্তানসম্ভবা। 

advertisement