advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চাষিদের মুখে আশার বাণী

১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০৬
advertisement

উৎপাদিত পেঁয়াজে দেশের চাহিদা কখনই মেটেনি। প্রতিবছরই আমদানি করতে হচ্ছে। কিন্তু এবার প্রেক্ষাপট একটু ভিন্ন। সংকট থাকার পরও সময়মতো পেঁয়াজ আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। তার ওপর বাজারে আছে সিন্ডিকেটের কারসাজি। ফলে পেঁয়াজের বাজারে এখন রীতিমতো আগুন। অথচ প্রতিবছর পেঁয়াজের মৌসুমে দাম না পেয়ে চাষিরা লোকসানে পড়েন, ক্ষোভ প্রকাশ করেন নানাভাবে। ফলে সরকারিভাবে নানা প্রণোদনার পরও পেঁয়াজ উৎপাদনকারী জেলাগুলোর চাষিরা গুরুত্বপূর্ণ এই খাদ্যপণ্য উৎপাদনে আগ্রহ হারাচ্ছেন। এ অবস্থায় বাজারে আসছে আগাম জাতের পাতাসহ পেঁয়াজ। বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি। এতে কিছ–টা হলেও ভোক্তারা সুবিধা পাচ্ছেন, পেঁয়াজ অপরিপক্ব হলেও লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। কিন্তু সার্বিকভাবে দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন বাড়ানোর বিশেষ কোনো উদ্যোগ নেই। এ অবস্থায় কিছু আশার কথা শুনিয়েছেন মানিকগঞ্জ ও লালমনিরহাটের চাষিরা। তারা জানিয়েছেন, আগামী ২০-২৫ দিনের মধ্যে বাজারে উঠবে নতুন পেঁয়াজ। কমবে দাম। পেঁয়াজ নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন- চাষিদের মুখে আশার বাণী

advertisement