advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শ্যালকের স্ত্রীকে ধর্ষণ করে জেলে দুলাভাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া ও ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০৬
advertisement

বগুড়ায় শ্যালকের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বোরহান আলী নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের গোয়ালগাড়ি এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। বোরহান জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার বেলঘড়িয়া গ্রামের আবদুল গফুরের ছেলে। তিনি শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে স্থানীয় এক ফটোকপির দোকানে কাজ করতেন। এদিকে ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার গাবলা গ্রামের একটি কলাবাগানে এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতিতাকে রাতেই ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বগুড়া সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান জানান, শনিবার সকাল ৮টার দিকে বোরহান গোয়ালগাড়ি এলাকায় তার শ্বশুরবাড়িতে যান। সেখানে শ্যালকের স্ত্রীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন তিনি। বিষয়টি পরিবারের সদস্যরা জানার পর থানাপুলিশকে অবহিত করেন। পুলিশ তাকে আটকের পাশাপাশি ওই গৃহবধূকে তাদের হেফাজতে নেয়। পরে ওই নারী বোরহানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। বোরহানকে আদালতের মাধ্যমে পাঠানো হয় কারাগারে। শৈলকুপার নির্যাতিতা ছাত্রীর বাবা জানান, রাত ৯টার দিকে বাড়ির পাশে তাকে ডাকতে যাচ্ছিল মেয়ে। এ সময় একই গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে রিফাত হোসেন (১৬) আরও তিনজনের সহযোগিতায় তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে বাড়ির পাশের একটি কলাবাগানে নির্যাতন করে ফেলে রেখে যায়। শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মো. মহাসিন হোসেন জানান, রাতেই মেয়েটির বাবা রিফাতসহ চারজনের নামে থানায় মামলা দায়ের করেন।

advertisement