advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আরও টেস্ট ম্যাচ চান মুমিনুল

ইন্দোর থেকে সাইফুল ইসলাম রিয়াদ
১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০১:৫০
advertisement

রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে বাংলাদেশ যতটা না রঙিন তার চেয়েও বেশি ধূসর সাদা পোশাকের টেস্ট ক্রিকেটে। পাঁচ দিনের এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স হতশ্রী। গতকাল ভারতের বিপক্ষে ইন্দোরে ইনিংসও ১৩০ রানের ব্যবধানে হারসহ বিদেশের মাটিতে খেলা সর্বশেষ ছয় টেস্টের পাঁচটিতেই হেরেছেন মুমিনুলরা। এই ছোট পরিসংখ্যানেই বোঝা যায় ব্যাটিং-বোলিং কোনো বিভাগেই ছড়ি ঘোরাতে পারেনি। ভারতের বিপক্ষেও লড়াই করতে পারেনি লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা, পাঁচদিনের টেস্ট হারতে হয়েছে তিন দিনেই। এই ব্যর্থতা কেনো?

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের অধিনায়ক মুমিনুল হকের কাছে এমন প্রশ্ন ছুটে গেলে তিনি বলে দেন টেস্ট ম্যাচ কম খেলাটাই মূল কারণ। তিনি বলেন, আমরা দল হিসেবে খেলতে পারিনি। জুটি করতে পারিনি। এটা খুব ভালো দলীয় পারফরম্যান্স নয়। এ ছাড়া আমরা খুব বেশি টেস্ট খেলি না। আপনি যদি দেখেন গত সাত মাসে দুই টেস্ট খেলেছি। পর্যাপ্ত টেস্ট না খেলা একটা মূল কারণ। ‘ভারতের বিপক্ষেসহ এই বছর বাংলাদেশ টেস্ট খেলেছে চারটি। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে দুটি নিজেদের মাটিতে একটি। সবগুলোতেই দেখতে হয়েছে হারের মুখ। সর্বশেষ বাংলাদেশ জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিজেদের মাটিতে।

টেস্ট কম খেলাটাই কী মূল কারণ? বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেছিলেন, এটা অনভিজ্ঞ টেস্ট দল, দলের আমূল পরিবর্তন প্রয়োজন। হারের বৃত্ত থেকে বেরোতে কোচ জানিয়েছেন, তিনি বসবেন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে। কিন্তু অধিনায়ক মুমিনুল কী মনে করেন? মুমিনুল অবশ্য স্বাগত জানিয়েছেন কোচের চিন্তাভাবনাকে, আমার কাছে মনে হয় যদি এমন সুযোগসুবিধা হয় কোচের সঙ্গে বসার, সেটা টেস্টে উন্নতি করার জন্য ভালো কাজে দিবে। যদি সেটা হয়, সাথে সাথে কিছু হবে না, সময় লাগবে। সেভাবে ধৈর্য ধরে এগোতে হবে। আমার মনে হয়, এটি একটি ইতিবাচক দিক’- কোচের উদ্দেশ্যকে ইতিবাচক বলে এভাবেই মন্তব্য করেন মুমিনুল।

দেশের মাটিতে একটু লড়াই করলেও বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স বেশি খারাপ। বাংলাদেশ দলের অধিনায়কের কাছেও বিদেশের মাটিতে ভিন্ন পরিবেশে খেলা চ্যালেঞ্জিং। মুমিনুল বলেন, ‘দেশের বাইরে টেস্ট খেলা সবসময় চ্যালেঞ্জিং আমার কাছে মনে হয়। আমরা দেশের বাইরে খুব একটা ভালো খেলতে পারি না। এটি অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং সত্যি কথা বলতে। অনেক চাপ থাকে, সেভাবে সবাইকে মানসিকভাবে প্রস্তুত হতে হবে। অনুশীলন করতে হবে। ‘আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়ন শুরু হওয়াতে এখন নিয়মিত বিদেশের মাটিতে খেলতে যেতে হবে টাইগারদের। এটাকে বড় সুযোগ হিসেবে দেখে মুমিনুল বলেন, ‘অবশ্যই আমরা খুশি। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ সবার জন্যই বড় সুযোগ। আমরা যারা বেশি টেস্ট খেলার সুযোগ পাই না আমাদের জন্য খুশির দিক। আইসিসি এটা না করলে আমরা খুব বেশি টেস্ট পেতাম না। অবশ্যই সবার জন্যই এটা ভালো।’

ভারতের বিপক্ষে এই টেস্টে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ দলের সেরা পারফর্মার মুশফিকুর রহিম। দুই ইনিংস মিলিয়ে তার ব্যাট থেকে আসে ১০৭ রান। দুর্দান্ত ব্যাটিং করেও মুশফিক ব্যাটিং করেন পাঁচ নম্বরে। এই নিয়েও কথা বলতে হয় বাংলাদেশ দলের অধিনায়ককে। ব্যাটিংয়ের জন্য মুশফিকুরের প্রশংসা করে মুমিনুল জানান, এটা টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত। ‘আমার মনে হয় এখনো সেভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। যদি টিম ম্যানেজমেন্ট মনে করে তা হলে হবে। আর আমার কাছে মনে হয় এটি একটি ইতিবাচক দিক, যদিও পরে প্রোমোট করা যায়। হ্যাঁ করা যায়, এটি দলের সিদ্ধান্ত’-মুশফিকের ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে বলছিলেন মুমিনুল।

advertisement