advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মঞ্চে হাতাহাতি সাবেক সাংসদ কেন্দ্রীয় নেতার : কুমিল্লায় জাপার সংঘর্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক কুমিল্লা
১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০৯
advertisement

কুমিল্লায় জাতীয় পার্টির (জাপা) সাংগঠনিক সভায় বক্তব্য দেওয়াকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে নগরীর কান্দিরপাড়ে কুমিল্লা টাউন হল মিলনায়তনে সংঘর্ষ শুরু হয়ে সার্কিট হাউসে গিয়ে শেষ হয়। এতে সাবেক সংসদ সদস্য আমির হোসেনসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তিনজনকে আটকের পর বিকালে ছেড়ে দেওয়া হয়।

জানা গেছে, দুপুরে কুমিল্লা টাউন হল মিলনায়তনে জাতীয় পার্টি কুমিল্লা দক্ষিণ ও উত্তর জেলা এবং মহানগরের সাংগঠনিক সভা চলছিল। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী কাজী ফিরোজ রশিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য এসএম ফয়সাল চিশতী, বিরোধীদলীয় হুইপ অধ্যাপক রওশন আরা মান্নানসহ কেন্দ্রীয় কমিটির বেশ কয়েকজন নেতা। এ সময় দক্ষিণ জেলা জাতীয় পার্টির সিনিয়র দুই নেতার মধ্যে বাগ্বিত-া দিয়ে ঘটনার সূত্রপাত। পরে উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ আমির হোসেন বক্তব্য দিতে গেলে কেন্দ্রীয় নেতা মাখন সরকার মাইক কেড়ে নেন। তখন মঞ্চে দুজনের মধ্যে হাতাহাতি হয়। অনুষ্ঠান শেষে দুই নেতার অনুসারীরা সংঘর্ষে জড়ান। এ সময় টাউন হল মাঠ থেকে দুই কর্মীকে আটক করে পুলিশ।

কেন্দ্রীয় নেতারা কুমিল্লা সার্কিট হাউসে গেলে আমির হোসেন ও মাখন সরকারের মধ্যে আবারও হাতাহাতি হয়। পুলিশ এ সময় মাখন সরকারকে আটক করে। দফায় দফায় এ সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। এ বিষয়ে উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি লুৎফুর রেজা খোকন বলেন, ‘তুচ্ছ ঘটনা কেন্দ্র করে সামান্য হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছিল। বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতারা মীমাংসা করে দিয়েছেন।’

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল হক বলেন, ‘টাউন হল ও সার্কিট হাউসের ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছিল। তবে এ বিষয়ে কারও কোনো অভিযোগ না থাকায় পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুরোধে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।’

advertisement