advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দিবারাত্রির টেস্ট নিয়ে চিন্তা নেই, রোমাঞ্চ কাজ করছে মিরাজদের

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ,ইন্দোর থেকে
১৮ নভেম্বর ২০১৯ ২০:৪৬ | আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ২০:৪৭
মেহেদী মিরাজ। পুরোনো ছবি
advertisement

নিজেদের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাসাদেশ-ভারত। ফ্লাড লাইটের আলোয় গোলাপি বলে দুই দেশের মধ্যে আভিজাত্যের লড়াই শুরু হবে ২২ নভেম্বর কলকতার বিখ্যাত ইডেন গার্ডেনে।

এই টেস্ট খেলতে নামার আগে আলোচনার কেন্দ্রতে এখন গোলাপি বলের আচরণ কেমন হবে তা নিয়ে। দুই দলেই খেলতে নামবে প্রথমবারের মতো, তাই অনেক অজানার মধ্যে যারা মাঠের সেরাটুকু দিতে পারবেন তারাই এগিয়ে যাবেন।

ইন্দোরের পাঁচ দিনের টেস্ট তিন দিনেই শেষ হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ গত দুই দিন ধরে গোলাপি বলে ফ্লাড লাইটের আলোয় কঠোর অনুশীলন করছে। আজ সোমবার সন্ধ্যায় অনুশীলন শেষে স্পিনার মেহেদী মিরাজ জানান তাদের মধ্যে রোমাঞ্চ কাজ করছে দিবারত্রির টেস্ট নিয়ে। পিঙ্ক বলে দুদলই যখন অজানার মধ্যে তাই চিন্তার কোনো কারণ দেখছেন না এই অলরাউন্ডার। মিরাজ বলেন, ‘নতুন একটা অভিজ্ঞতা, টেনশন না। বরং বাড়তি রোমাঞ্চ কাজ করছে পিংক বলে খেলবে প্রথমবার। নরমাল যেরকম হয় সেরকমই, সবাই নরমাল আছি। সবসময় যেভাবে ম্যাচে, মাঠে নামি সেরকমই আছি।’

বলের আচরণ নিয়ে মিরাজ বলেন ‘আজকে আমি ব্যাটিং করেছি তো বলটা একটু মুভ করছিল। আমার কাছে মনে হয় বলটা একটু ভারি ব্যাটে লাগলে খুব দ্রুত যায়। আমার কাছে মনে হয় পিংক বলে সুইং থাকতে পারে একটু বেশি প্রথম দিকে, অনেক সময় কাটও করতে পারে। দেখলাম মাঝেমাঝে বল কাটও করছে। তারপরও ম্যাচে গেলে কেমন হয় আসলে সবারই অভিজ্ঞতা নাই। যতটুকু আমরা অনুশীলন করেছি বিশেষ করে এরকম সময় পাইনি। যতটুকুই পাচ্ছি আমরা কাভার করার চেষ্টা করছি পিংক বলে শতভাগ ইউটিলাইজ করার চেষ্টা করেছি।’

মেহেদী মিরাজ ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে বোলিংয়ে কোনো অবদান রাখতে না পারলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত খেলেছিলেন। প্রথম ইনিংসে তার ব্যাট থেকে আসে ০ রান আর দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ৫৫ বলে ৩৮ রান। বিপদের সময়ে ক্রিজে থাকা মুশফিকুর রহীমের সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ৫৯ রানের জুটি গড়ে দলকে দ্রুত পরাজয়ের হাত থেকে বাঁচিয়েছেন। ব্যাটিং নিয়ে মিরাজ বলেন, ‘এটা নিয়ে আমাদের কথা হয়েছে কোচও কথা বলেছে বিশেষ করে আমার সাথে ও যারা পেস বোলার আছে তাদের সাথে। আমরা যেন একজন ভালো ব্যাটসম্যান ক্রিজে থাকলে তাকে সাপোর্ট দিতে পারি, রান না করলেও ২০-৩০ টা বল খেলে সমর্থন অন্তত দিতে পারি।  প্রথম দিকে একটু স্ট্রাগল করতে হবে কারণ, আমার কাছে মনে হয় শুরুতে এডজাস্ট করতে পারলে, সেট হতে পারলে পরে ইজি হয়ে যাবে।’

মুশফিকের সঙ্গে জুটি নিয়ে মিরাজ বলেন, ‘মুশফিক ভাই সবসময় আমাকে ব্যাটিং নিয়ে বলে, একটা জিনিস দেখেন বাংলাদেশ টিমের যতগুলো বড় জুটি হয়েছে বেশিরভাগই মুশফিক ভাইয়ের সাথে হয়েছে। ওয়ানডে বলেন, টেস্ট বলেন উনার সাথেই হয়েছে, উনার সাথে আমার বোঝাপড়া ভালো হয়।’

ভারত ও বাংলাদেশ ছাড়া টেস্ট খেলুড়ে সবদেশই গোলাপি বলে দিবারাত্রির টেস্ট খেলেছে। এ তালিকায় এবার যুক্ত হচ্ছে কোহলি-মুমিনুলরা। এখন পর্যন্ত হওয়া ১১টি টেস্টে সবগুলোতেই ফলাফল হয়েছে, সবচেয়ে বেশি জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশের খেলোয়াড়রাও পিঙ্ক বলে খেলার জন্য মুখিয়ে আছেন। তারপরেও তারা বলের আচরণ নিয়ে সতর্ক।

মিরাজ বলেন, ‘আসলে সবাই পজিটিভ, সাথে এক্সাইটেডও এরকম পিংক বল ও ফ্লাডলাইটে প্রথমবার খেলবে। বলটা অ্যাজ ইউজুয়াল, তারপরও কেয়ারফুল থাকতে হবে কারণ, ম্যাচেতো আমাদের যতটুক অনুশীলন হয়েছে সেটাই কাভার করতে হবে।’

প্রথম ম্যাচে ভারত এক ইনিংস ব্যাটিং করেছিল। প্রথম দিনের শেষ সেশন ও দ্বিতীয় দিন পুরো ব্যাটিং করা ভারতের উইকেট মাত্র ছয়টি পড়েছে। তারমধ্যে পেসাররা নিয়েছেন পাঁচটি (রাহী ৪ ও এবাদত ১)। স্পিনারদের মধ্যে একমাত্র মিরাজই নিয়েছেন একটি উইকেট। তার মতে, গোলাপি বলে স্পিনাররা বাড়তি সুবিধা পাবে। তিনি বলেন,  ‘আমার কাছে মনে হিয় স্পিনাররা স্কিট করতে পারবে বেশি, বাউন্সও থাকতে পারে, টার্নও থাকতে পারে। যতটুকু অনুশীলন করলাম, মনে হচ্ছে বলটা ফরওয়ার্ড হচ্ছে, বাউন্স থাকছে স্পিনাদের জন্য। এটা হয়তো বাড়তি সুবিধা হবে।’

তবে গতি না বোঝার সমস্যা হতে পারে জানিয়ে মিরাজ বলেন, ‘যখন সিমে যায় অনেকসময় বোঝা যায় আবার অনেক সময় সিম বোঝা যায় না। একটু হয়তো স্পিনাররা সিমও বুঝবো না এখানে হয়তো বাড়তি সমস্যা স্পিনারদের জন্য।’

advertisement