advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভেঙেছে এলডিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০১:৩০
advertisement

অলি আহমেদ থেকে সরে আবদুল করীম আব্বাসী ও শাহাদাৎ হোসেন সেলিমের নেতৃত্বে সাত সদস্যের ‘সমন্বয় কমিটি’ নামে পাল্টা কমিটির ঘোষণা দিয়েছে এলডিপির একাংশ। এ সমন্বয়ক কমিটির মাধ্যমে বিএনপির সঙ্গে যুক্ত থাকবে এবং ২০-দলীয় জোটের শরিক দল হিসেবে থাকবে। গতকাল সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কমিটি গঠনের ঘোষণা করা হয়। সকালে এলডিপির ব্যানারে পাল্টা কমিটি গঠনের ঘোষণার পর বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল (অব) অলি আহমদ বলেন, তার নেতৃত্ব এলডিপিই মূল এলডিপি। এলডিপি আমার নামে, আমি দরখাস্ত করেছি। এক নম্বর রাজনৈতিক নিবন্ধিত দল। এ দল তো অন্য কেউ নেওয়ার আইনগত অধিকার রাখে না। এখন যদি নিজের বাবার নাম বাদ দিয়ে আমার নামে পরিচিত হন কোনো আপত্তি নেই। এর আগে সকালে সংবাদ সম্মেলনে শাহাদাৎ হোসেন সেলিম বলেন, কর্নেল অলির সঙ্গে কাজ করা যায় না। তাই এলডিপির সমন্বয়ক কমিটিতে আবদুল গনি, এমএ বাশার, সৈয়দ ইব্রাহিম রওনক, তৌহিদুল আনোয়ার, কাজী মতিউর রহমানও এলডিপির সমন্বয় কমিটিতে আছেন। সংবাদ সম্মেলন সাবেক হুইপ আবদুল করীম আব্বাসী বলেন, অলির সঙ্গে কোনো বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ রাজনীতি করতে পারবেন না। আমি দীর্ঘ সময় দেখেছিÑ উনি শুধু নিজের স্বার্থ ছাড়া কিছু চিন্তা করেন না। একবার ছাতা এদিকে ধরেন আরেকবার ওদিকে ধরেন। বিএনপি ছাড়লাম, এবার এলডিপি ছাড়তে চলেছি, বলতে পারেন

ছেড়েই দিয়েছি। তিনি বলেন, এলডিপি যখন ২০০৬ সালে গঠন করেছিলাম তখন ১০২ জন কেন্দ্রীয় নেতা এবং ৩২ জন সাবেক মন্ত্রী-এমপি বিএনপি থেকে পদত্যাগ করেছিলাম। এ মুহূর্তে অলি সাহেবের সঙ্গে একজন (রেদোয়ান আহমদ) ছাড়া কেউ নেই।

আপনারা কি এলডিপিতে আছেন প্রশ্ন করা হলে সেলিম বলেন, আমরাই এলডিপি, আমরা এলডিপি নিয়েই আছি। আমাদের এলডিপির সভাপতির পদ রয়েছে। সেই পদে এখন সভাপতি হচ্ছেন আবদুল করীম আব্বাসী।

অলি আহমদের সঙ্গে আপনাদের বিভেদ কী নিয়ে প্রশ্ন করা হলে সেলিম বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তিনি এভাবে জামায়াতকে সমর্থন দিতে পারেন নাÑ এটা উনাকে আমরা মুখের ওপরে বলেছি। এ জন্য বিভেদ তৈরি হয়েছে। তিনি এলডিপিকে পৈতৃক সম্পত্তি মনে করেছেন। একটা রাজনৈতিক দল চলবে সাংগঠনিক নিয়মে, কারও পৈতৃক সম্পত্তি হতে পারে না।

৯ অক্টোবর এলডিপির চেয়ারম্যান অলি আহমদ ২০৩ সদস্যের যে কমিটি ঘোষণা করেন তাতে আবদুল করীম আব্বাসী ও সাহাদাত হোসেন সেলিমের নাম ছিল না। তবে এর আগের কমিটিতে করীম আব্বাসী প্রেসিডিয়াম সদস্য ছিলেন এবং সেলিম যুগ্ম মহাসচিব।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনে অলি আহমদ বলেন, ওরা পদত্যাগ করেছে কয়েকজন। দু-একজন আছে, যারা এ রকম জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নয় যে তাদের বহিষ্কার করে কাগজ নষ্ট করব। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে কয়েকশ’ রাজনৈতিক দল আছে, আরেকটা হবে। প্রেসক্লাবের সুবিধা হবে, মিটিং হবে। সামনে ফুটপাতে বসবে, অনেক সুবিধা বাড়বে, অসুবিধা কিসের।’

আপনি জাতীয় মুক্তিমঞ্চ অতিমাত্রায় জামায়াতে ইসলামী-নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন, যে কমিটি করেছেন সেখানে ত্যাগী নেতাদের আপনি বাদ দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে- প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, কোনো ত্যাগী নেতাকে বঞ্চিত করা হয়নি।

 

advertisement