advertisement
International Standard University
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর গাছে বেঁধে নির্যাতন, স্বামীকে হত্যা

জামালপুর প্রতিনিধি
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ১২:৩৯ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ১৪:২২
প্রতীকী ছবি
advertisement

জামালপুরে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর তার স্বামীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ অপমৃত্যুর মামলা নিলেও হত্যা ও ধর্ষণ মামলা না নেওয়ায় বিষয়টি আলোচনায় আসে।

জানা গেছে, গত শুক্রবার ধর্ষণের পর ওই নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন চালায় একদল দুর্বৃত্ত। পাশাপাশি তার স্বামীর লাশ গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে বলেও প্রচার করে তারা।

এ ঘটনায় গতকাল সোমবার রাতে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন ওই গৃহবধূ। তারা হলেন- সদর উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের ছানোয়ার হোসেন, শাওন ও রফিজ উদ্দিন। তাদের মধ্যে আসামি শাওনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পেশায় কাঠমিস্ত্রির স্ত্রী ওই নারী বলেন, শুক্রবার রাত ৮টায় তিনি ঘরের বাইরে নলকূপ থেকে পানি নেওয়ার সময় ছানোয়ার, শাওন ও রফিজ তাকে মুখ চেপে ধরে পাশের জঙ্গলে নিয়ে যায়। এরপর তিনজনই তাকে ধর্ষণ করে। তখন তার স্বামী বাজার থেকে ফিরলে তাকে আটকায় ওই দুর্বৃত্তরা। তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে তার স্বামীকে হত্যার পর বাড়ির পাশে অন্য একটি গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে।

এ ঘটনায় শনিবার সকালে সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই গৃহবধূর স্বামীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। পরে অপমৃত্যুর মামলা করে পুলিশ। কিন্তু ওই গৃহবধূকে হাসপাতালে ভর্তি বা নির্যাতনের ঘটনায় কোনো মামলা নেয়নি পুলিশ। নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, এলাকার প্রভাশালীরা ধর্ষণকারীদের পক্ষ নেওয়ায় মামলা নেয়নি পুলিশ।

পরে সোমবার রাতে ওই গৃহবধূকে নিয়ে জামালপুর প্রেসক্লাবে হাজির হন তার শ্বশুর। তখন গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতায় তাকে রাতেই জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক হাসানুল বারী শিশির সাংবাদিকদের বলেন, নির্যাতিত ওই গৃহবধূর দেহের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। আজ মঙ্গলবার তার ডাক্তারি পরীক্ষা হবে।

ওই গৃহবধূর মামা শ্বশুর অভিযোগ করেন, থানায় মামলা করার পর শ্রীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল হক ফনি মোবাইলে ফোন করে তাদের ‘দেখে নেওয়ার’ হুমকি দেন। এজন্য তারা নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও ইউপি চেয়ারম্যানের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালেমুজ্জামান বলেন, নির্যাতিত গৃহবধূ বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে পুলিশ রাতেই শাওন নামে এক আসামিকে মধুপুর থেকে গ্রেপ্তার করে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

advertisement