advertisement
International Standard University
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

খুলনায় বাস চলবে কাল থেকে

নিজস্ব প্রতিবেক
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ১৬:৪৩ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ১৯:৩৫
advertisement

খুলনাসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলায় বন্ধ রাখার পর আগামীকাল বুধবার থেকে সব সড়কপথে বাস চলাচল করবে। নগরের সোনাডাঙ্গার আন্তজেলা বাস টার্মিনাল থেকে বাস ছাড়বে। প্রশাসনের অনুরোধে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাস চালকরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে খুলনা সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে শ্রমিক সংগঠনগুলোর সঙ্গে বৈঠক করে জেলা প্রশাসন। বৈঠকে ২১ ও ২২ নভেম্বর নতুন নীতিমালা কিছুটা শিথিল করার আশ্বাস দিলে চালক ও মালিকরা বাস চালু করার সিদ্ধান্ত নেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, ঢাকায় জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের বৈঠক হবে ২১ ও ২২ নভেম্বর। বৈঠক পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ সড়কপথে গাড়ি চালানোর অনুরোধ করেছেন জেলা প্রশাসক। তার পরিপ্রেক্ষিতে বাস চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আশপাশের বিভিন্ন জেলাসহ খুলনায় বাস চলাচল বন্ধ ছিল আজ সকাল থেকে। চালক ও মালিকদের ‘কর্মবিরতিতে’ বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েন হাজারো মানুষ। গতকাল সোমবার শুধু অভ্যন্তরীণ সড়কপথে গাড়ি চলাচল বন্ধ ছিল। যে কারণে এ দুদিনে মাহেন্দ্র, মিনি পিকআপ, মাইক্রোবাসসহ ছোট গাড়িগুলো কয়েকগুণ বেশি ভাড়া আদায় করছে।

খুলনা ও আশেপাশের জেলাগুলোতে বাস চলাচল বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আঞ্চলিক শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বকস। গাড়ি ও চালকদের কাগজপত্র হালনাগাদ না থাকায় মালিক ও চালকরা স্বেচ্ছায় গাড়ি চালানো বন্ধ রেখেছেন বলে জানান তিনি।

খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগামী কয়েকদিন নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নে কিছুটা শিথিল করার আশ্বাস দেওয়ায় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে চালক ও মালিকদের গাড়ি চালানোর অনুরোধ করা হয়েছে। কাল থেকে চালকেরা গাড়ি চালাবেন বলে তিনি জানান।

তিনি আরও বলেন, খুলনায় গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও সমস্যা হলো অন্যান্য জেলার শ্রমিকদের নিয়ে। খুলনা থেকে অন্যান্য রুটে বাস গেলেই সেখানকার শ্রমিকেরা তা আটকে দেয়। এরপরও আগামীকাল থেকে অন্তত অভ্যন্তরীণ রুটে বাস চলবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

জেলা প্রশাসনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ, খুলনা আঞ্চলিক শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন, খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

advertisement