advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লবণের কৃত্রিম সংকট : রাজধানীতে কারসাজি ঠেকাতে মাঠে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ১৯:৪৪ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:২৩
পুরোনো ছবি
advertisement

দেশে লবণের কৃত্রিম সংকট তৈরি করে কেউ যাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য মাঠে নামছে পুলিশ। দোকানে দোকানে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা এ বাহিনীর সদস্যদের তল্লাশি চালানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (অপারেশন) মনিরুল ইসলাম ওয়ারলেসে পুলিশ সদস্যদের এই নির্দেশ দেন।

নির্দেশনার পর মাঠে নেমেছে পুলিশ। বিভিন্ন এলাকার মুদি দোকানগুলোতে গিয়ে তারা লবণের মজুতের খোঁজখবর নিচ্ছেন। রাজধানীর কয়েকটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণমাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের কয়েকটি টিম নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করছে। মুগদা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা জানান, লবণ নিয়ে যাতে কোনো বিশৃঙ্খলা না হয় সেজন্য পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে প্রচারণা চালান হচ্ছে। এছাড়া কেউ অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করছে কি না-সে বিষয়ে নজর রাখছেন তারা।

মঙ্গলবার সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন জেলার বাজার ও খুচরা দোকানে লবণের সংকট দেখা গেছে। অনেকে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণ দামে লবণ কিনেছেন বলে দাবি করেন। এ বিষয়ে এক বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) জানিয়েছে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ছয় লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুত রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুত রয়েছে। তারপরও একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। লবণ নিয়ে কিংবা অন্য কোনো বিষয়ে কোনো ব্যক্তি বা মহল বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বা অন্য যে কোনোভাবে গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ধরনের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে বিসিক।

পুরান ঢাকার নয়াবাজারে অভিযান

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাজধানীর পুরান ঢাকার নয়াবাজারে অভিযান চালাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ আল মামুন। তিনি বাজারের পাইকারি দোকানগুলোতে লবণের মজুত নজরদারি করছেন। ব্যবসায়ীদের কাছে লবণের দাম বৃদ্ধি ও সংকটের কারণ জানতে চাইছেন।

ধানমন্ডি ও হাজারীবাগে ৫জন আটক

জানা গেছে, ধানমন্ডি ও হাজারীবাগে অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে ঘটনার নিশ্চয়তা স্বীকার করেনি পুলিশ।

তথ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তি

লবণ নিয়ে সৃষ্ট গুজবের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে তথ্য অধিদপ্তর। এতে বলা হয়েছে, লবণ নিয়ে পরিকল্পিতভাবে দেশে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। দেশে লবণের কোনো ঘাটতি নেই। একটি মহল পরিকল্পিতভাবে দেশে গুজব ছড়ানোয় লিপ্ত রয়েছে। সম্প্রতি দেশে লবণের প্রাপ্যতা নিয়েও গুজব ছড়ানোর একটি অপচেষ্টা চলছে।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তি

লবনের ঘাটতির তথ্য ভুয়া জানিয়ে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়ও। এতে বলা হয়েছে, প্রকৃতপক্ষে দেশে লবণের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে এবং ডিসেম্বর মাসেই দেশে নতুন লবণ উৎপাদিত হয়ে বাজারে আসবে। বর্তমান মজুদের সঙ্গে যোগ হবে নতুন উৎপাদিত লবণ। ফলে দেশে লবণের কোনো সংকট নেই বা এমন কোনো সম্ভাবনাও নেই। গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় সরকারের বিজ্ঞপ্তিতে।

এতে আরও বলা হয়, লবণ নিয়ে কিংবা অন্য কোনো বিষয়ে কোনো ব্যক্তি বা মহল বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা অন্য যে কোনোভাবে গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

খুলেছে কন্ট্রোলরুম

লবণ সংক্রান্ত বিষয়ে তদারকির জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বিসিক প্রধান কার্যালয়ে ইতোমধ্যে একটি কন্ট্রোলরুম খুলেছে। নম্বর ০২-৯৫৭৩৫০৫ (ল্যান্ড ফোন), ০১৭১৫-২২৩৯৪৯ (সেল ফোন)। যেকোনো তথ্যের প্রয়োজনে কন্ট্রোলরুমের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রীর নির্দেশ

লবণের দাম বাড়ালে অসাধু ব্যবসায়ীদের জেল-জরিমানা দিতে ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেন, ‘একটা গুজব ছড়িয়ে লবণের বিষয়ে ব্যবসায়ীরা অবাস্তব সুযোগ নিচ্ছে। এ বিষয়ে আমি খবর নিয়েছি। লবণ চাষীদের সুবিধার্থে সরকার আমদানি বন্ধ রেখেছে। তারপরেও লবণের দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই।’

অপপ্রচারের কারণে কিছু জায়গায় লবণের দাম বেড়েছে। দামবৃদ্ধির জন্য সাংবাদিকদেরও দায় রয়েছে বলে মন্তব্য করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

অভিযানের ফলাফলের বিষয়ে পরবর্তীতে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

advertisement