advertisement
International Standard University
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement

সব খবর

advertisement

নম্বর প্লেট না থাকায় বিআরটিসি বাস আটকে দিলেন শ্রমিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৫:৫৫ | আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৭:০১
সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে নম্বরবিহীন বিআরটিসির দ্বিতল বাস আটকে দেন পরিবহন শ্রমিকেরা। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

নতুন সড়ক আইন বাতিলের দাবিতে টানা তিনদিন ধরে সড়কে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় গণপরিবহন হিসেবে বিআরটিসির দ্বিতল বাসই একমাত্র ভরসা। কিন্তু নম্বর প্লেট না থাকায় পরিবহনশ্রমিকরা বিআরটিসির দ্বিতল দুটি বাস আটকে দিল।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে নীলফামারীর সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে নম্বর প্লেটবিহীন বিআরটিসির দুটি বাস আটকে দেন পরিবহনশ্রমিকরা। ঠাকুরগাঁও থেকে রংপুরের উদ্দেশে ছেড়ে আসা বাস দুটি এক ঘণ্টা পর যাত্রীসহ ফেরত পাঠানো হয়।

দেশের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি তিন দিন ধরে অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘট চলছে নীলফামারীর সৈয়দপুরেও। সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে মাঠে ছিল সেখানকার বাস, ট্রাকসহ পরিবহনশ্রমিকরা। 

এদিকে, গতকাল বুধবার রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে পরিবহন নেতাদের ফলপ্রসূ আলোচনার পরও আজ বৃহস্পতিবার সৈয়দপুর টার্মিনাল থেকে কোনো দূরপাল্লার বাস চলাচল করেনি। 

বন্ধ রয়েছে সৈয়দপুর-ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনা, সিলেটসহ সব গন্তব্যের বাস চলাচল। এ অবস্থায় বিচ্ছিন্নভাবে সৈয়দপুরের ওপর দিয়ে বিআরটিসির বেশ কিছু দ্বিতল বাস যাত্রীসেবা দিয়ে আসছিল। ফলে পরিবহন খাতে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে। 

নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক বলেন, ‘আমরা সামান্য একটা কাগজ ছাড়া সড়কে যানবাহন নামাতে পারি না, অথচ সরকারি গাড়ি নম্বর প্লেট ছাড়াই চলছে। আইন সবার জন্য সমান। তাই আমরা ওই বাস দুটি আটক করেছি। পরে এসব ফেরত পাঠানো হয়েছে।’

বিআরটিসি বাস আটকের ঘটনা জানতে পেরে নীলফামারী উপজেলা প্রশাসন ও সৈয়দপুর থানা-পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে যায়। প্রশাসনের মধ্যস্থতায় পরে বাস দুটি ছেড়ে দেওয়া হয়।

advertisement