advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ব্যাট-বল ‘চুরি’ করায় ৫ শিক্ষার্থীকে পেটালেন দুই শিক্ষক

তাড়াশ প্রতিনিধি
২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৬:১৭ | আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৬:৫১
ব্যাট-বল চুরির অভিযোগে মারধরের আতঙ্কে বিদ্যালয়ে আসছে না শিক্ষার্থীরা। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় বিদ্যালয়ের ক্রিকেট ব্যাট-বল ‘চুরি’র অভিযোগ তুলে পাঁচ শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির দুজন শিক্ষক। এতে আতঙ্কে বিদ্যালয়ে আসছে না নির্যাতনের শিকার ওই শিক্ষার্থীরা।

গত সোমবার তাড়াশ পৌর এলাকার শোলাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটেছে।

ওই শিক্ষার্থীরা হলেন-সপ্তম শ্রেণির শাহিন আলম, নবম শ্রেণির রিন্টু, আবুল বাশার, ষষ্ঠ শ্রেণির সৌরভ ইসলাম ও কামরুল ইসলাম।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার শোলাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দোবিলা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ক্রিকেট খেলতে যায়। সেখানে বিদ্যালয়ের একটি ব্যাট ও বল হারিয়ে ফেলে। পরের দিন ওই শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসলে ব্যাট-বল জমা দিতে গিয়ে একটি ব্যাট ও বল দিতে পারেনি।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহম্মেদ আলী শিক্ষার্থীদের ব্যাট-বল চুরির অভিযোগ তুলে অফিস রুমে ডেকে নেন। পরে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক ইউনুস আলী ব্যাট-বল চুরির অপরাধে তাদের বেধরক পেটান।

নির্যাতনে শিকার শিক্ষার্থীরা জানায়, খেলতে গিয়ে ব্যাট-বল হারিয়ে গেছে। অথচ দুই শিক্ষক আমাদের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ এনে পাঁচজনকে পেটাতে থাকেন। আর পেটাতে গিয়ে ওই শিক্ষকরা আমাদের পিঠের ওপর চারটি বেত ভেঙে ফেলেন। ওই দুই শিক্ষক মারধরের পাশাপাশি চড়-থাপ্পড় দিয়ে মেঝেতে ফেলে দিয়ে গালাগাল করেন। এ ঘটনার পর থেকে আতঙ্কে তারা বিদ্যালয়ে আসছে না।

নির্যাতনের শিকার রিন্টুর বাবা ও ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম জানান, সামান্য ব্যাট-বল চুরির অপরাধে শিক্ষার্থীদের পেটানো উচিত হয়নি। তবে বিষয়টি নিয়ে ঘরোয়াভাবে বসে মীমাংসার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহম্মেদ আলী জানান, শিক্ষার্থীরা বেপরোয়া। তাই তাদের সামান্য চড়-থাপ্পড় দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফকির জাকির হোসেন বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের শারীরিকভাবে নির্যাতন করা ঠিক হয়নি। বিষয়টি জেনে পরবর্তী সময়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

advertisement