advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘গোলাপি বলের আচরণ নিয়ে আগ্রহ সবার’

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ
২১ নভেম্বর ২০১৯ ২০:১৮ | আপডেট: ২২ নভেম্বর ২০১৯ ০০:৫৪
টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক
advertisement

রাত গড়ালেই ইডেন গার্ডেনে বসতে যাচ্ছে তারার মেলা। মাঠে থাকবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। থাকার কথা আছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও। উদ্দেশ্য একটাই, গোলাপি বলের রোমাঞ্চিত টেস্টের সাক্ষী হওয়া।

উপমহাদেশে প্রথম অনুষ্ঠিতব্য এই ম্যাচটিতে দুদেশের ক্রিকেট তারকা থেকে শুরু করে কলকাতার নানা শ্রেণি পেশার মানুষ মাঠে থাকার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। গোলাপি বলের টেস্ট অভিষেককে স্মরণীয় করে রাখতে নানা আয়োজন করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে উচ্ছস্বিত খেলোয়াড়রাও। কারণ, দুই দলের কেউ আগে এই বলে টেস্ট খেলেনি।

গোলাপি বলের টেস্ট ম্যাচ নিয়ে বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেন, ‘এটা দুই দলের জন্যই নতুন। আমার মনে হয়, দুদলই এই ম্যাচ নিয়ে রোমাঞ্চিত। আমরা এই ম্যাচের জন্য খুব ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। আমার মনে হয়, এই প্রস্তুতির সুফল আমরা ম্যাচে পাব। আপসেটের দিকে তাকিয়ে কোনো লাভ নেই। আমরা সুযোগ কাজে লাগানোর দিকে তাকিয়ে আছি। ’

মুমিনুল বলেন, ‘গোলাপি বলের টেস্ট নিয়ে কলকাতার মানুষও রোমাঞ্চিত। তারা সবাই এই ম্যাচের অংশ হতে চায়। পরিবার-স্বজন নিয়ে মাঠে আসতে চায়। বাইরে কি হচ্ছে না হচ্ছে আমার জানা নেই, পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে এটা আমাদের প্রভাবিত করবে।এই চাপ কোনোভাবেই আসা উচিত না, যে যার কাজ ঠিক মতো করছি।’

ম্যাচের অবস্থা নিয়ে টেস্ট অধিনায়ক বলেন, ‘আমি কখনও ব্যক্তিগত লক্ষ্য কিংবা ফল নিয়ে চিন্তা করি না। আমি যে প্রক্রিয়ায় খেলি, সেটা ঠিক রাখার চেষ্টা করি। আমার মনে হয়, দলের সবাই এটাই অনুসরণ করে। আমার মনে হয় প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। দর্শক মাঠে আনতে গোলাপি বলের টেস্ট ভালো একটা সুযোগ। কিছু দল ক্রমশ শক্তি হারাচ্ছে, কিছু দল দুর্বল হচ্ছে এটা আমার মনে হয় না।’

‘আপনি যখন একটা ম্যাচ খেলতে নামবেন তখন আগের ম্যাচ জিতেছেন না হেরেছেন সেটা নিয়ে চিন্তা করতে পারবেন না। খারাপ-ভালো যেটাই হোক সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে আপনি পরের ম্যাচের দিকে মনোযোগ দিতে পারবেন। আগে ম্যাচে আমরা যেসব ভুল করেছি, সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে এই ম্যাচে কাজে লাগাবো, এটাই আমি আশা করি- বলেন মুমিনুল।

টাকা ১১ অর্ধশতক হাঁকানো এই ক্রিকেটার আরও বলেন, ‘গোলাপি বল কেমন আচরণ করবে, এটা নিয়ে একটু আগ্রহ আছে সবার। এর বাইরে আমাদের রোমাঞ্চ কেবল খেলা নিয়ে।’ একাদশ ঠিক হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখনও একাদশ ঠিক করা হয়নি। হয়তো কাল ঠিক করবো। টিম ম্যানেমেন্টের সঙ্গে ওইভাবে কথা-বার্তা হয়নি। ভেতরে একটা কথা চলছে, কয়জন পেসবোলার খেলবে, কয়জন ব্যাটসম্যান খেলবে।’

দিবা-রাত্রি ম্যাচ নিয়ে ডানহাতি এই খেলোয়াড় আরও বলেন, ‘আমার মনে হয় গোলাপি বলে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হবে ফ্লাড লাইটের আলোয় খেলা। বলের যে রঙ থাকে এর জন্য দৃশ্যমানতায় সমস্যা হতে পারে ব্যাটসম্যানদের। একই সমস্যার জন্য ফিল্ডিংও চ্যালেঞ্জিং হবে। ব্যাটিংয়ে যদি আপনার মনোযোগ না থাকে তাহলে সমস্যা হবে। আমার মনে হয়, প্রতিটি বলে শতভাগ মনোযোগী থাকতে হবে তাহলে ভালো কিছু হবে।’

খেলা তিন দিনে শেষ হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘একজন খেলোয়াড় হিসেবে আমি তো কোনো সময় বলতে পারি না যে তিন দিনে শেষ হবে। ঘাস থাকলেই যে খেলা তিন দিনে শেষ হবে এমন কোনো কথা নেই। হয়তো ঘাস থাকার পরও হার্ড উইকেটের জন্য বল ভালোভাবে ব্যাটে আসতে পারে। কিউরেটর স্পোর্টিং উইকেটের কথা বলেছেন, আমার মনের হয় স্পোর্টিং উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো।’

ইন্দোরে আমাদের বোলিং হয়েছিল।  রাহী ও ইবাদত ভালো করেছিল। ব্যাটিংয়ে মুশফিক দুই ইনিংসেই ভালো করেছে। প্রথম ইনিংসের ভুল থেকে আমরা কিছু শিক্ষা নিতে পারি, বিশেষ করে টপ অর্ডার। আমরা বড় কোনো জুটি গড়তে পারিনি। ছোট ছোট কিছু জুটি গড়েছি আমাদের একশ-দেড়শ-দুইশ রানের জুটি লাগবে- বলেন মুমিনুল।

তিনি আরও বলেন, ‘কিছু কিছু শট সিলেকশন নিয়ে আমাদের চিন্তা আছে। এই ব্যাপারে আমাদের আরও মনোযোগী হতে হবে। আমাদের মানসিকভাবে আরও বেশি প্রস্তুত থাকতে হবে, মনোযোগী হতে হবে। ওদের তিনজন খুব ভালো পেসার আছে, তাদের সামলাতে আমাদের ধৈর্য ধরতে হবে।’

মাঠে দর্শক উপস্থিতি নিয়ে মুমিনুল বলেন, ‘দর্শক যদি মাঠে থাকে আমার সব সময় খেলতে ভালো লাগে। খেলাটা অনেক বেশি মজা হয়, আমি এভাবেই চিন্তা করি।  আমার মনে হয় না, এটা কোনোভাবে চাপ হবে।’

সফরে প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে মুমিনুল বলেন, ‘সফরে আমরা কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাইনি। গোলাপি বলেও কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ নেই।  আমরা মূলত মানসিক দিকটায় বেশি গুরুত্ব দিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছি। গোলাপি বলে কোনো টেস্ট খেলার আগে অবশ্যই একটা প্রস্তুতি ম্যাচ থাকা উচিত ছিল।’

ম্যাচ জেতার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি যখনই মাঠে নামবো, জেতার জন্যই খেলবো। প্রথম টেস্টে যে ভুলগুলো করেছিলাম, সেই ভুলগুলো আমি যত করা যায় সেই চেষ্টা করবো। ব্যাটসম্যানরা সেশন বাই সেশন ব্যাটিংয়ের চেষ্টা করবো, বোলাররাও সেশন ধরে ধরে ভালো বোলিংয়ের চেষ্টা করবে। ফ্লাড লাইটে খেলার চ্যালেঞ্জ আছে আবার ওদের বোলারদের খেলারও চ্যালেঞ্জ আছে। আমার মনে হয়, এই সব চ্যালেঞ্জ ইতিবাচকভাবে নেওয়াই ভালো। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।  ভারতীয় বোলারদের খেলা অবশ্যই চ্যালেঞ্জ। তিনজন বিশ্ব মানের পেসারের বিপক্ষে খেলছেন, এটা শুধু আমাদের জন্য না সব দলের জন্যই চ্যালেঞ্জিং।’

অধিনায়ক আরও বলেন, ‘আমার ফোকাস একটু বেশি রাখতে হবে। যে ভুলগুলো করেছি, সেগুলো না করার চেষ্টা করতে হবে।  ব্যাটসম্যানদের ধৈর্য ধরতে হবে। অন্যদের মনোযোগ হয়তো নড়ে গেছে। কিন্তু আমাদের দলের কারও নড়েনি। সবাই নিজের মতো করে প্রস্তুতি নিচ্ছে। শামিকে কিভাবে খেলবে, এটা তো আমি আপনাকে এখানে ব্যাখ্যা করতে পারব না। অভিষেক হিসেবে অভিষেক টেস্টে এক নম্বর দলের বিপক্ষে তাদের মাটিতে খেলা। এটা একটা চ্যালেঞ্জ সঙ্গে মজাও।’

মুস্তাফিজের খেলার বিষয়ে টেস্ট অধিনায়ক বলেন, ‘মুস্তাফিজ খেলবে কি খেলবে না এই বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। হয়তো খেলতে পারে, নাও খেলতে পারে, এটা নিশ্চিত না।’

advertisement