advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অনিয়ন্ত্রিত প্রস্রাবের কারণ

ডা. মো. অহিদুজ্জামান
৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ০২:১৭
ফাইল ছবি
advertisement

অনেক রোগীর (বেশিরভাগই বয়স্ক) অভিযোগ, তারা প্রস্রাব আটকে রাখতে পারেন না। সামান্য হাঁচি-কাশিতেও প্রস্রাব বের হয়ে যায়। এ সমস্যা নারী-পুরুষ উভয়েরই হয়। এটি আসলে মূত্রাশয় বা মূত্রনালির অসুখের লক্ষণ। মূত্রথলি প্রস্রাবে পূর্ণ হলে প্রবল চাপে তা বেরিয়ে আসে।

এ ছাড়া মূত্রথলি ঘিরে থাকা পেশি ঠিকমতো কাজ না করলেও প্রস্রাব বেরিয়ে আসতে পারে। মূত্রথলিতে প্রস্রাবের চাপ বাড়লে পেশি শিথিল থাকায় মূত্রথলি প্রস্রাব আটকে রাখতে পারে না। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে এ সমস্যা দেহের অন্য কোনো রোগের কারণে হতে পারে। ওই রোগের চিকিৎসা করালে নিরাময় সম্ভব।

রোগের কারণ : স্ট্রেস বা অতিরিক্ত চাপ। পুরুষের ক্ষেত্রে প্রস্টেট গ্রন্থি বড় হলে, সার্জারি করলে। কোনো আঘাতের কারণে মূত্রথলির চারপাশের পেশি আঘাতপ্রাপ্ত হলে কিংবা কার্যক্ষমতা হারালে। নারীর ক্ষেত্রে সন্তান জন্ম দেওয়ার সময় কিংবা ওজন বাড়ার কারণে পেটের নিচের পেশিগুলো শিথিল হয়ে পড়লে, পেশিগুলো মূত্রথলি ঠিকমতো ধরে রাখতে না পারলে। এ ছাড়া স্ট্রোক, প্রস্টেট বা মূত্রথলির ক্যানসার, পার্কিনসন্স ডিজিজ, কোনো অসুখের কারণে মূত্রথলি ছোট হয়ে গেলে বা প্রস্টেট বড় হয়ে গেলে এ ধরনের সমস্যা বেশি দেখা দেয়।

চিকিৎসা : পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ সেবন, ব্যায়াম এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে সার্জারির মাধ্যমে এ রোগ থেকে মুক্তি লাভ সম্ভব।

প্রতিরোধ : যত্রতত্র স্থানে প্রস্রাব না করা, ধূমপান না করা, অতিরিক্ত মদ্যপান, কফিপান থেকে বিরত থাকা, নারীরা প্রস্রাব আটকে না রাখলে এ ধরনের সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা কম।

লেখক : কনসালট্যান্ট, ইউরোলজি বিভাগ, বিএসএমএমইউ

চেম্বার: সেন্ট্রাল হসপিটাল, গ্রিনরোড, ধানম-ি, ঢাকা। ০১৭১১০৬৩০৯৩

advertisement