advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দিনমজুর বাবার স্বপ্ন কি হারিয়ে যাবে?

অনলাইন ডেস্ক
৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৭:০৫ | আপডেট: ৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৭:০৫
শিশু আমির হামজা
advertisement

ছোট্ট শিশু আমির হামজা। বয়স মাত্র আড়াই বছর। এই বয়সে যে শিশুটির বাড়ির আঙিনায় হেসে-খেলে বেড়ানোর কথা, মা-বাবার মুখের হাসি হয়ে থাকার কথা, সে বয়সেই শিশুটি কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত। সারাক্ষণ বিছানায় শুয়ে অস্থিরতায় মধ্যে তার দিন কাটছে।

শিশুটির শ্বাসকষ্ট আর হাঁপানিতে জীবন যেন বেরিয়ে যাওয়ার উপক্রম। কিন্তু এই ছোট্ট শিশুটির কি এমন অসুখ?

আমির হামজার বাবা মো. জুলহাস জানান, জন্মের আট মাস পর থেকে আমির হামজার মধ্যে প্রাণ চাঞ্চলতা হারাতে শুরু করে। সারাক্ষণ শুধু কান্না আর অস্থিরতা। একপর্যায়ে হাঁপানিভাব লক্ষ্য করা যায় তার মধ্যে। এমন অবস্থা দেখা দিলে ময়মনসিংহের চরপাড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসককে দেখানো হয় হামজাকে। সেখানকার চিকিৎসকেরা জানান, হামজার হার্ডব্লক হয়ে আছে। একই সঙ্গে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

পেশায় রাজমিস্ত্রি বাবা জুলহাস ছেলেকে নিয়ে ঢাকার মিরপুর হার্ড ফাউন্ডেশনের আসেন। সেখানকার চিকিৎসকরা হামজাকে দেখার পর তাকে দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ইতিমধ্যে হামজার চিকিৎসায় সামর্থ্যের সবটুকু শেষ করে ফেলেছেন বাবা জুলহাস।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হামজাকে যতদ্রুত সম্ভব দেশের বাইরে নিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে। তার এই চিকিৎসায় চার থেকে পাঁচ লাখ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু দিনমজুর বাবা জুলহাসের ভিটমাটি ছাড়া আর কিছুই নেই। তাই ছেলের এমন অসুখে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তিনি।

ময়মনসিংহ সদরের পরানগঞ্জ ইউনিয়নের চর বউলা গ্রামে ছোট্ট এই শিশুটির এমন অসুখে ব্যথিত এলাকার মানুষও। বাবা জুলহাস ও মা হামিজা খাতুনের দুই ছেলের মধ্যে ছোট আমির হামজা। ছেলেকে বাঁচাতে তারা দুজনই জেলা-উপজেলার বিভিন্ন বিত্তবান মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।  কিন্তু ছেলেকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার জন্য সামান্য পরিমাণ টাকাও এখনো জোগাড় হয়নি।

ছেলেকে বাঁচাতে আমির হামজার বাবা-মা সমাজের বিত্তবান মানুষের কাছে হাত বাড়িয়েছেন।  অসহায় বাবা-মায়ের আদরের ধনকে বাঁচাতে আপনারা কি এগিয়ে আসবেন না?

আমির হামজার চিকিৎসা সহায়তা পাঠানোর ঠিকানা ও যোগাযোগ

মো. জুলহাস

হিসাব নম্বর : ০৩৮৬৬২৬, ডাচ বাংলা ব্যাংক, ময়মনসিংহ সদর

মোবাইল ব্যাংকিং : ০১৯৮৯২৮৩৩০৫০ (রকেট), ০১৯৮৯২৮৩৩০৫ (বিকাশ ও নগদ)

 

advertisement