advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পদত্যাগ করা সেকেন্ডের ব্যাপার : বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৯:০৬ | আপডেট: ৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৩:৪৪
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। পুরোনো ছবি
advertisement

চড়া দামের কারণে বাজারের পেঁয়াজের ঘাটতি, এর মধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির পদত্যাগ দাবি করেছে কেউ কেউ। আজ মঙ্গলবার এক আলোচনা সভায় এ কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কেউ কেউ আমার পদত্যাগ দাবি করছেন। পদত্যাগ করা এক সেকেন্ডের বিষয়, তাতে যদি পেঁয়াজের দাম কমে। এই মন্ত্রিত্ব কাজ করার জন্য।’

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি রোধে ব্যবসায়ীদের করণীয় কী, তা নিয়েই ওই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপকমিটি রাজধানীর একটি হোটেলে এ সভার আয়োজন করে।

সভায় টিপু মুনশি পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির কারণ তুলে ধরে বলেন, ‘বছরের শেষ দিকে প্রতি মাসে ১ লাখ টন পেঁয়াজ আসে। ভারত বন্ধ করে দেওয়ায় এসেছে ২৫ হাজার টন করে। মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আসত। পেঁয়াজের বাজার সামাল দিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। অন্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ব্যবসায়ীদের অনুরোধ বড় করার পর তারা উদ্যোগী হয়। প্রধানমন্ত্রী নিজে এস আলমের প্রধানের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন।’

এ সময় কোনো মুনাফা ছাড়া পেঁয়াজ আমদানি করে দেওয়ায় সিটি, মেঘনা ও এস আলমকে ধন্যবাদ জানান মন্ত্রী। টিপু মুনশি বলেন, ‘ সেখানে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দাম বেড়ে গেছে। এ অঞ্চলে সব দেশেই পেঁয়াজের দাম চড়া। তাদের পেঁয়াজের খরচ পড়েছে কেজিপ্রতি সাড়ে ৪২ টাকা। এ পেঁয়াজ টিসিবিকে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এর বাইরে অনেকে আমদানি করছে, সেটাতো চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে।‘

ভারতীয় পেঁয়াজ বন্ধের বিষয় সম্পর্কে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী তিন বছরে পেঁয়াজে স্বাবলম্বী হওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। এবার নতুন পেঁয়াজ উঠলে ভারতীয় পেঁয়াজ আমি বন্ধ করে দেব।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কাজী আকরাম উদ্দীন আহমদ, শিল্প-বাণিজ্য বিষয়ক উপকমিটির সদস্যসচিব আবদুছ সাত্তারসহ এফবিসিসিআইয়ের কয়েকজন পরিচালক, বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমিতির নেতার।

advertisement