advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হট্টগোল করে আদালতের ওপর চাপ সৃষ্টির চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক
৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ০০:৩০
advertisement

সর্বোচ্চ আদালতে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের আচরণকে অভাবনীয় ও ফ্যাসিবাদী আখ্যায়িত করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেন, হট্টগোল করে, সেøাগান দিয়ে আদালতের কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি করা চরম ফ্যাসিবাদী কাজ। এটি জবরদস্তি করে আদালতের ওপর চাপ সৃষ্টির চেষ্টা। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে শুধু তালিকাভুক্ত আইনজীবীদেরই আদালত কক্ষে ঢুকতে দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে প্রধান বিচারপতির কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি পেছানোর পর গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতির এজলাসেই বিক্ষোভ-হট্টগোল করেন দলটির সমর্থক আইনজীবীরা। এতে আপিল বিভাগে প্রায় তিন ঘণ্টা বিচার কাজ বন্ধ থাকে। এর পর সরকার সমর্থক আইনজীবীদের সংবাদ সম্মেলনে অ্যাটর্নি জেনারেল এসব কথা বলেন। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার বিবরণ দিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, সকাল ৯টায় আদালত বসেছে। তাদের (বিএনপি) আইটেমটা যখন মুলতবি করা হয়েছে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত, তার পর তারা যে আচরণ করেছেন, এটি অভাবনীয় এবং ফ্যাসিবাদী আচরণ। খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা আদালত কক্ষে বসে থেকে ‘কেউ এটি থামানোর চেষ্টা করেননি’ জানিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, কিছু আইনজীবী যারা এই আদালতে অপরিচিত তারা আদালতে সেøাগান, হট্টগোল, গ-গোল করে সোয়া ১টা পর্যন্ত আদালতে বসে ছিলেন, অন্য আইনজীবীরা বসে ছিলেন। তারা আদালতের কাজে বাধা সৃষ্টি করেছেন।

মাহবুবে আলম বলেন, খালেদা জিয়ার দুটি মামলারই আপিল রেডি। অথচ তারা শুনানির কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। নানা অজুহাতে এবং এই মামলাটিতে সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে ফায়দা লুটার চেষ্টা করছেন। অপরাধী অপরাধ করেছেন, তার বিচার হবে। আদালত যদি মনে করেন জামিন দেবেন বা দেবেন না।

বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক ও বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন বলেন, বিএনপি যে আইনের শাসনে বিশ্বাস করে না আজ তার প্রমাণ হয়েছে। তারা যে আচরণ করেছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু বলেন, তারা আদালতের কাজে বাধা দিয়ে আদালত অবমাননার অপরাধ করেছে, এটি শাস্তিযোগ্য। প্রধান বিচারপতির কাছে আবেদন, দায়ীদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এএম আমিন উদ্দিন বলেন, হট্টগোলকারীদের অনেকেই আইনজীবী নন। কালো কোট পরে আদালতে বহিরাগতরা প্রবেশ করেছিল। বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদ্য সচিব ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, তাদের এই ন্যক্কারজনক কর্মকা-ে এটিই বোঝা যাচ্ছে, খালেদা জিয়া আসলে অসুস্থ নন, তারা জোরপূর্বক তার জামিন আদায় করতে চায়। ভবিষ্যতে এ ধরনের বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটলে আইনজীবীরা সমুচিত জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকবেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

advertisement