advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ধুনট স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ফের গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক,বগুড়া
৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৭:২৮ | আপডেট: ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৭:২৯
ধুনট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

চেক জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের মামলায় সাজার আদেশপ্রাপ্ত আসামি বগুড়ার ধুনট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদকে (৩৫) ফের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সুলতান মাহমুদ উপজেলার সদরপাড়া গ্রামের আজিবর রহমানের ছেলে।

আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানামুলে গতকাল রোববার মধ্যরাতে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে তাকে বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুলতান মাহমুদ ২০১৭ সালে ধুনট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মনোনীত হন। এরপর থেকে তিনি প্রশাসনিক তদবির ও নিয়োগ বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। তার বিরুদ্ধে মন্ত্রী, এমপি, প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের নাম ভাঙিয়ে পুলিশ কনস্টেবল, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার নামে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার একাধিক মামলা রয়েছে।

এসব চাকরি প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার সময় সুলতান মাহমুদ রূপালী ব্যাংক ধনুট শাখায় তার সঞ্চয়ী হিসাবের চেক দিয়েছেন। কিন্তু তার ওই ব্যাংক হিসাব নম্বরে কোনো টাকা জমা ছিল না। পরে প্রার্থীরা চাকরি না পেয়ে ওই ব্যাংক শাখায় চেক নগদায়ন করতে গিয়ে অপর্যাপ্ত তহবিলের কারণে টাকা উত্তোলন করতে ব্যর্থ হয়ে তার বিরুদ্ধে বগুড়া যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে চেক জালিয়াতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে একাধিক মামলা দায়ের করেছেন। এর মধ্যে একটি মামলায় আদালত ৭ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে ৯ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন ওই নেতাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানামুলে এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি সুলতান মাহমুদকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে প্রতারণার অভিযোগে তিনটি মামলায় ২ অক্টোবর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।’

advertisement