advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিআরটিসি বাস চালুর প্রতিবাদে ময়মনসিংহে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক,ময়মনসিংহ
১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৮:২৮ | আপডেট: ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ ০১:৩৮
প্রতীকী ছবি
advertisement

ময়মনসিংহ বাস ডিপো থেকে স্থানীয় বিভিন্ন রুটে বিআরটিসির দুতলা বাস চালুর প্রতিবাদে সারা দেশের সঙ্গে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন বেসরকারি পরিবহন শ্রমিকরা।

গতকাল সোমবার ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণা জেলা থেকে রাজধানী ঢাকাসহ ৩৪টি রুটে চলাচলকারী বাসের ক্ষেত্রে এ ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়।

এসব রুট থেকে বিআরটিসি বাস অপসারণ না করা পর্যন্ত এই ধর্মঘট চলবে বলে জানান ময়মনসিংহ মোটর মালিক সমিতির সম্পাদক (বাস) শামসুল আলম তালুকদার।

এদিকে ময়মনসিংহ অঞ্চলে বাস ধর্মঘটের ফলে হাজার হাজার যাত্রীদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জনগণের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত রোববার নেত্রকোনা-ময়মনসিংহ রুটে পাঁচটি দুতলা বিআরটিসি বাস সার্ভিস উদ্বোধন হয়। পরদিন সোমবার দুপুরের পর নেত্রকোনা থেকে ময়মনসিংহ ও ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ করে দেন বাস শ্রমিকরা। একই সঙ্গে তারা রাজধানী ঢাকাসহ ৩৪টি রুটে ময়নসিংহ অঞ্চলের সঙ্গে সারা দেশের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দেন।

এ বিষয়ে বিআরটিসি ময়মনসিংহ বাস ডিপো ম্যানেজার (অপারেশন) মো. লুৎফুর আজাদ দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘স্থানীয় জনসাধারণের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে অত্র অঞ্চলের মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য এবং জেলা প্রশাসকদের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন রুটে বিআরটিসি বাস সার্ভিস চালু হয়েছে। এতে বিআরটিসি বাস সেবায় সর্বস্তরের মানুষ সন্তুষ্ট।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘পুলিশি নিরাপত্তায় বাস চালুর জন্য প্রয়োজনীয় পুলিশ চেয়েও তা পাইনি। আজ মঙ্গলবার সকালে যাত্রীদের অনুরোধে ময়মনসিংহ শহরের পাটগুদাম ব্রিজ মোড় থেকে একটি বাস ফুলপুরের উদ্দেশে ছেড়ে গেলে কিছুদূর যেতে না যেতেই বেসরকারি বাস শ্রমিকরা বিআরটিসি বাস ড্রাইভার গোলাম সারোয়ারকে মারধর করে এবং ট্রাফিক ইনচার্জ প্রকাশ চন্দ্র ঘোষকে নানাভাবে হুমকি দেয়। এ ব্যাপারে বাস ড্রাইভার ও ট্রাফিক ইনচার্জ স্বাক্ষরিত ময়মনসিংহ কোতুয়ালী মেডেল থানায় দুটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।’

তবে এ বিষয়ে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন (অতিরিক্ত ডিআইজি) জানান, বিআরটিসি বাসে পুলিশি নিরাপত্তা চেয়ে পত্র পাঠানোর বিষয়টি তার জানা নেই।

বিআরটিসি ময়মনসিংহ বাস ডিপো ম্যানেজার জানান, বিআরটিসি বাসে পুলিশি নিরাপত্তা চেয়ে পত্রটি ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের দপ্তরে পাঠানো হয়েছে এবং তাদের হাতে পত্র প্রাপ্তির রিসিভ কপি রয়েছে।

advertisement