advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা, অভিযোগ খণ্ডনে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন সু চি

অনলাইন ডেস্ক
১১ ডিসেম্বর ২০১৯ ১২:৪৮ | আপডেট: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৫:৩৯
আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমার ও গাম্বিয়ার প্রতিনিধি দলের একাংশ। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলায় নেদারল্যান্ডের হেগে আন্তর্জাতিক আদালতে দ্বিতীয় দিনের শুনানি হবে আজ। বুধবার বাংলাদেশ সময় বেলা তিনটা থেকে যুক্তি উপস্থাপন করবে অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন মিয়ানমার প্রতিনিধি দল।

মামলার বাদী হিসেবে গাম্বিয়া, অভিযুক্ত মিয়ানমার ছাড়াও বাংলাদেশসহ অনেক দেশের প্রতিনিধি দল শুনানিতে উপস্থিত থাকবেন।

প্রথম দিনের শুনানিতে গতকাল মঙ্গলবার গাম্বিয়া অভিযোগ করে, রোহিঙ্গা গণহত্যা রাতারাতি ঘটেনি বরং পরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রের তরফ থেকে চালানো হয়েছে জাতিগত নিধন। বসনিয়া ও রুয়ান্ডার মতো গণহত্যা না ঘটানোর দাবি জানায় গাম্বিয়া। 

গতকাল মঙ্গলবার শুনানির সময় আদালতের বাইরে মিয়ানমারের বিপক্ষে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভে ইউরোপিয়ান রোহিঙ্গা কাউন্সিল আর মিয়ানমার মুসলিম অ্যাসোসিয়েশন নেদারল্যান্ডস নেতৃত্ব দেয়।

আগামীকাল ১২ ডিসেম্বর হবে উভয়পক্ষের যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন। প্রথমে গাম্বিয়া অভিযোগ উপস্থান করবে, পরে মিয়ানমার তাদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগের যুক্তি খণ্ডন করতে পারবে।

এদিকে, রোহিঙ্গা নির্যাতনের অভিযোগে মিয়ানমারের চার সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ কথা জানায় মার্কিন সরকারের ট্রেজারি বিভাগ। এ চার সেনা হলেন- মিয়ানমার সেনাবাহিনীর প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং, সেনাবাহিনীর উপপ্রধান ভাইস সিনিয়র জেনারেল সোয়ে উইন, ৯৯ লাইট ইনফানট্রি ডিভিশনের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থান ও এবং ৩৩ লাইট ইনফানট্রি ডিভিশনের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অং অং।

এর আগেও মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। মিয়ানমারের সেনা কর্মকর্তাদের ওপর মার্কিন এই নিষেধাজ্ঞার ফলে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের কোনো সম্পদ থাকলে তা জব্দ করা হবে। এমনকি তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ব্যবসায়ী কার্যক্রম চালাতে পারবেন না মার্কিন নাগরিকেরা।

advertisement