advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সাবেক স্বামীর এসিডে ঝলছে গেল মা-ছেলের শরীর

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ০১:৪৮ | আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ০১:৪৮
এসিড দগ্ধ মা ও ছেলে। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

ডাক্তার দেখাতে এসে সাবেক স্বামীর ছোড়া এসিডে ঝলসে গেছে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার নামাপাড়া এলাকার এক নারী। এ সময় দগ্ধ হয়েছে তার চার বছর বয়সী শিশুপুত্রও।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৭টার দিকে ময়মনসিংহের সারদা ঘোষ রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। ছেলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে রেফার্ড করা হয়েছে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে সাবেক স্বামী হাফিজ আহমেদকে আটক করে গণপিটুনী দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

পুলিশ ও স্বজনরা জানায়, সাত বছর আগে ত্রিশাল উপজেলার মোক্ষপুর ইউনিয়নের মোক্ষপুর গ্রামের হাফিজ আহমেদের সাথে বিয়ে হয় পৌর শহরের এক নম্বর ওয়ার্ডের নামাপাড়া এলাকার রূপালী আক্তারের। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন করতো স্বামী হাফিজ আহমেদ। কয়েকদফা যৌতুক দেয় রূপালীর পরিবার।

পরবর্তীতে আরও যৌতুক দাবি করলে পরিশোধ করতে না পারায় বছর খানেক আগে স্ত্রীকে তালাক দেয়। এ নিয়ে রূপালী আক্তার মামলা করলে গত বুধবার হাফিজ আহমেদকে অপরিশোধিত দেন মোহরের তিন লাখ ৮০ হাজার টাকা দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হাফিজ আহমেদ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাবেক স্ত্রী রূপালী আক্তারকে ময়মনসিংহ নগরীর সারদা ঘোষ রোড এলাকায় ডাক্তার দেখাতে আসলে সাবেক স্বামী হাফিজুর রূপালীর শরীরে এসিড নিক্ষেপ করে।

এসিডে রূপালীর মুখমন্ডলসহ শরীরের বেশীর ভাগ এবং সঙ্গে থাকা চার বছরের শিশু পুত্র রোহানের শরীর ঝলসে যায়।

ময়মনসিংহের সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, ঘটনাস্থল থেকে সাবেক স্বামী হাফিজকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

advertisement