advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মেয়েরা ছোট জামা পরলেই গুলি করে মারুন, পুলিশ সদস্যের বক্তব্য

অনলাইন ডেস্ক
১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ০২:৫৫ | আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ০২:৫৫
মুম্বাই পুলিশ
advertisement

ছোট জামা পরলেই মেয়েদের গুলি করে মেরে ফেলা হোক বলে মন্তব্য করেছেন এক পুলিশ সদস্য। ধর্ষণ রুখতে এর চেয়ে ভালো কিছু তিনি দেখন না বলেও মন্তব্য তার।

সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম মুম্বাই মিরররে এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে (ভিডিও চিত্রসহ) এমন তথ্য জানা গেছে।

গোপনে ধারণ করা ওই ভিডিওতে দেখা যায়, মুম্বাইয়ের গুরুগ্রামে রাতে দায়িত্বপালরত এক পুলিশ সদস্য প্রতিবেদনকারীর প্রশ্নের উত্তরে বলছেন, হাঁটুর উপরে বা ছোট জামা পরা মেয়েদের গুলি করে মেরে ফেলা হোক। এমন কাপড় পরা মেয়েরা তো ধর্ষণের শিকার হবেই। তাদের শরীরে ট্যাটু থাকা উচিত না, মদপানের জন্য বারে যাওয়া উচিৎ না। তাদের জন্য এসব বন্ধ করা উচিৎ।

ওই পুলিশ সদস্য আরও বলেন, মেয়েরা ছোট ছোট জামা পরে, তাদের শরীরের কাতর জায়গাগুলো দেখা যায়। এগুলো দেখে ছেলেরা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। আমার তো মনে হয় মেয়েরা বাড়ি থেকে ছোট জামা পরে বেরোতে চাইলে মা-বাবারই উচিৎ তাকে মেরে ফেলা। তা না হলে পথচলতি মানুষের নজরে আসলেও তাকে গুলি করে খুন করা উচিৎ।’

মুম্বাই মিরর বলছে, ভারতে ধর্ষণকাণ্ড বেড়ে গেছে। সম্প্রতি হায়দরাবাদে এক তরুণী চিকিৎসককে ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জনপ্রতিক্রিয়া নেওয়া হচ্ছিল। তারা রাতে কাজ করা কোনো ব্যক্তি বা দায়িত্বরত কোনো পুলিশের কাছ থেকে তাদের মতামত নিতে চাচ্ছিলেন। গুরুগ্রামে ওই পুলিশ সদস্যকে দেখে মিররের প্রতিবেদক প্রশ্ন করলে, এসব উত্তর দেন তিনি।

ওই পুলিশ সদস্যের সঙ্গে কথা বলার সময় গোপন ক্যামেরায় তা ভিডিও করা হচ্ছিল, যা তিনি দেখতে পারেননি। দায়িত্বরত অবস্থায় পুলিশের ওই সদস্য আরও বলেন, কোনো ছেলে দৈত্য নয়। কিছু মেয়ে আছে এমন যারা শরীরের একটি অংশ প্রদর্শণ করে। সেটা যেভাবেই হোক। তাই তারা ধর্ষণ-গণধর্ষণের শিকার হয়।

তিনি আরও বলেন, কিছুদিন আগে একটি মেয়ে তার সঙ্গে অশভ্যতা করা হয়েছে বলে অভিযোগ জানাতে আসে। অথচ তার চাল-চলন, পোশাক দেখে আমি লজ্জা পেয়ে যাই। পা, স্তন, নিতম্ব সব স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে। এখন শীতের রাত, পুলিশেরও শীত লাগে। এই ঠান্ডায় শুধু মেয়েদেরই শীত করে না।

পুলিশ সদস্যের ভাষ্য, এখনকার বাবা-মায়েরা মেয়েদের উপযুক্ত শিক্ষা দিতে পারছেন না। খাওয়া, ঘুম এবং পড়াশুনো সঠিক সময়ে করতে হয়। মেয়েরা এসব শিখছে না। আমি তাদের বলব- মেয়েকে উপযুক্ত শিক্ষা দিতে না পারলে মেরে ফেলুন। দেশের পরিস্থিতি খুব খারাপ। মেয়েরাই জোর করে তা ডেকে আনছে।

ভিডিও প্রকাশ হওয়ার পর থেকে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য, প্রদেশ থেকে পুলিশের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। প্রায় সকলেই এই পুলিশ সদস্যকে প্রকাশ্যে শাস্তির দাবি করছেন। ভারত পুলিশ এখনও এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

মুম্বাই মিররের ভিডিওটি দেখুন :

advertisement