advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘পাগলা গারদে’ পাঠানোর কথা বলায় বাবাকে কুপিয়ে হত্যা

চাঁদপুর প্রতিনিধি
২০ জানুয়ারি ২০২০ ২২:৫৭ | আপডেট: ২০ জানুয়ারি ২০২০ ২৩:০০
প্রতীকী ছবি
advertisement

পাগলা গারদে পাঠানোর কথা বলায় চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে চেরাগ আলী (৭০) নামে এক বৃদ্ধ বাবাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছেলের বিরুদ্ধে। এ সময় মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন বৃদ্ধা মা ফুলমতি বেগম (৬০)।

গতকাল রোববার রাতে উপজেলার চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের স্বেতী নারায়নপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত চেরাগ আলী বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী ছিলেন।  অভিযুক্ত ছেলের নাম আকবর আলী (৪০)।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নিহত চেরাগ আলীর তিন সন্তানের মধ্যে আকবর আলী সবার বড়।  তিনি দীর্ঘদিন ধরে মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছেন।

এ ঘটনায় নিহতের ছোট ছেলে সোলায়মান বাদী হয়ে বড় ভাই আকবর আলীকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, গত রোববার সন্ধ্যার পর বাবার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন আকবর। ওই সময় তার আচরণে বাবা চেরাগ আলী ছেলেকে পাগলা গারদে পাঠাবে বলে হুমকি দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দা দিয়ে বাবাকে কুপিয়ে জখম করে আকবর। এ সময় স্বামীকে বাঁচাতে আসলে মা ফুলমতিকেও এলোপাতাড়ি কোপালে তিনি গুরুতর আহত হন।

একপর্যায়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান বাবা চেরাগ আলী। আর আহত ফুলমতিকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনে ভর্তি করায় প্রতিবেশীরা।

নিহতের ছেলের স্ত্রী হাসিনা বেগম বলেন, ‘আকবর আলী পাগলাটে ধরনের হওয়ায় তার স্ত্রী দুই ছেলে-মেয়ে নিয়ে বাবার বাড়ি চলে গেছেন। আমরাও তার ভয়ে তেমন একটা বাড়িতে আসি না।

চিতোষী পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জোবায়েদ কবির বাহাদুর বলেন, ‘শুনেছি নিহতের ছেলে পাগল। কিন্তু এ ব্যাপারে আমি নিশ্চিত নই।’

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘খবর পেয়ে আমরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু তার আগেই ঘাতক পালিয়ে গেছে। তবে আমরা লাশ উদ্ধার করে সোমবার সকালে মর্গে পাঠিয়েছি।’

ওসি আরও বলেন, ‘শুনেছি আসামি মানসিক ভারসাম্যহীন। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি তদন্ত শেষে হত্যার মূল কারণ উদঘাটিত হবে।’

advertisement
Evaly
advertisement