advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সব পজিশনই পছন্দ শান্তর

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২১ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০২০ ০১:৩৭
advertisement

পাকিস্তান সফরের টি-টোয়েন্টি দলে থাকা নাজমুল হোসেন শান্ত জানিয়েছেন, পজিশন নিয়ে তিনি চিন্তিত নন। ব্যাটিংয়ে যে পজিশনেই তাকে নামানো হোক না কেন তিনি পারফরম করতে চান। গতকাল ২১ বছর বয়সী বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান বলেছেন, ‘পজিশন নিয়ে কোনো চিন্তা নেই। দলে সুযোগ পেয়েছি, যে কোনো পজিশনে খেলার জন্য প্রস্তুত আছি। যেখানেই খেলব চেষ্টা করব পারফরম করার।’

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে বাংলাদেশের একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি করেছেন শান্ত। খুলনা টাইগার্সের ওপেনার ১১ ম্যাচে ৩৪.২২ গড়ে ৩০৮ রান করেছেন। সর্বোচ্চ ১১৫*। স্ট্রাইকরেট ১৪৩.৯২। খুলনার হয়ে ওপেনিং পজিশনে ব্যাটিং করেছেন। তবে জাতীয় দলে এ পজিশনে তার জায়গা নেই। টিম ম্যানেজমেন্টের তরফ থেকে ইতোমধ্যে শান্তকে তা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তরুণ এ ব্যাটসম্যানও তাই পজিশন নিয়ে ভাবছেন না। তবে তিনি যে টপ অর্ডারে খেলতে পছন্দ করেন সে কথা গোপন রাখেননি। বলেছেন, ‘সাধারণত আমি টপ অর্ডারে খেলি। ওখানে নামলে অবশ্যই ভালো। তবে পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে আমি মনে করি, যে কোনো পজিশনে নেমে রান করা উচিত। যেখানে ব্যাটিংয়ের সুযোগ আসবে, পারফরম করার চেষ্টা করব।’

মুজিববর্ষে তিন দফায় পাকিস্তান সফরে যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। প্রথমে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এ সফরের আগে তিন দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্পে অংশ নিয়েছেন দলে ডাক পাওয়া খেলোয়াড়রা। ক্যাম্পের দ্বিতীয় দিন গতকাল নাজমুল হোসেন শান্ত জানালেন, দল হিসেবে খেলতে পারলে ভালো ফল করা সম্ভব। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজকে চ্যালেঞ্জিং বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘ওদের দল নিয়ে আমরা খুব একটা চিন্তা করছি না। আমাদের নিজেদের যে পরিকল্পনা বা শক্তির জায়গা আছে, সেটা যদি আমরা ঠিক রাখতে পারি তা হলে ওখানেও সফল হওয়া সম্ভব বলে আমি মনে করি।’ তিনি আরও বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে যে কোনো দল যে কোনো দিন জিততে পারে। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলব। প্রথম লক্ষ্য থাকবে প্রথম ম্যাচটি নিয়ে।’

বাংলাদেশের পাকিস্তান সফরের আগে আলোচনার বেশিরভাগ জুড়েই ছিল নিরাপত্তা প্রসঙ্গ। নিরাপত্তা ইস্যুতে এ সফর থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। এ ছাড়া কোচিং স্টাফের অনেক সদস্যও যাচ্ছেন না। শান্ত অবশ্য এসব নিয়ে ভাবছেন না। খেলার দিকেই তার মনোযোগ। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ইমার্জিং টিমস এশিয়া কাপ খেলতে বাংলাদেশের হয়ে পাকিস্তান সফরে যাওয়া এই ব্যাটসম্যানের লাহোরের উইকেট সম্পর্কেও বেশ ধারণা আছে। শান্ত বলেন, ‘আমরা যখন গিয়েছিলাম খুব বেশি আমাদের ও-রকম সমস্যা হয়নি। যে উইকেটে খেলে এসেছি, খুব ভালো ছিল। স্পোর্টিং উইকেট। বোলাররা যদি ভালো জায়গায় বল করে তা হলে তারা সাহায্য পায়, ব্যাটসম্যানরাও সাহায্য পায়। আমরা যদি আমাদের পরিকল্পনা এবং শক্তিমত্তা অনুযায়ী খেলতে পারি তা হলে অবশ্যই বড় রান করা এবং বোলাররা উইকেট নেওয়ার ক্ষমতা রাখে।’

বিশেষ ভাড়া করা বিমানে (চার্টার্ড ফ্লাইট) বাংলাদেশ দলকে পাকিস্তান নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা বিসিবির। ২৩ জানুয়ারি লাহোর পৌঁছবেন মাহমুদউল্লাহ, তামিমরা। এর পর দিন সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে দুদল।

advertisement
Evaly
advertisement