advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মন খারাপ করে বসে থাকার পাত্র আমি নই : রানা

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ
২১ জানুয়ারি ২০২০ ১০:২৬ | আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০২০ ১৫:৪০
মেহেদী হাসান রানা
advertisement

মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলছে বহুল আলোচিত পাকিস্তান সফরের ক্যাম্প। টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে থাকা সদস্যরা একে একে ঝালিয়ে নিচ্ছেন নিজেদের। কিন্তু একটি দৃশ্য ব্যতিক্রম মনে হলো, মোস্তাফিজ-হাসান মাহমুদদের সঙ্গে বল হাতে দৌড়াচ্ছেন বঙ্গবন্ধু বিপিএলে দুর্দান্ত বোলিং করা মেহেদী হাসান রানাও। টি-টোয়েন্টি সিরিজের ১৫ সদস্যের দলে নতুন মুখ হিসেবে হাসান মাহমুদ জায়গা পেলেও পাননি রানা।

তবুও জাতীয় দলের ক্যাম্পে রানা কেন? অনুশীলন শেষে দৈনিক আমাদের সময়ের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘ভাই আমাকে ডাকে নাই, তাই বলে মন খারাপ করে বসে থাকার পাত্র আমি নই। আমি নিজে থেকেই বোলিং করতে আসলাম, বোলিং করেছি অনেকক্ষণ ধরে, কোচের (ডমিঙ্গো) সঙ্গে কথা হয়েছে।’

সদ্য শেষ হওয়া বঙ্গবন্ধু বিপিএলে নিজেদের শেষ ম্যাচটি ছাড়া রানার কেটেছে স্বপ্নের মতো। ১০ ম্যাচে নিয়েছেন ১৮ উইকেট। ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ৭ দশমিক ৫০ রান করে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে একটি ওভার তার গেছে দুঃস্বপ্নের মতো। রানার করা ইনিংসের ১৮তম ওভারে ২৩ রান নিয়ে ম্যাচে ঘুরিয়ে দিয়েছিলেন আন্দ্রে রাসেল। নিজের করা আগের তিন ওভারে মাত্র ২৪ রান দেওয়া এই পেসার শেষ ওভারেই দিয়েছেন ২৩ রান! এই দুঃস্বপ্ন যেনো তার কাটছেই না।

প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও আজ অনুশীলনে আশ্বাস দিয়েছেন তার বোলিং দেখার পর। বলেছেন এ রকম হতেই পারে। ‘আমার বোলিং দেখার পর ডমিঙ্গো বলেন, তুমি ভালো করছো। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে এ রকম হতেই পারে। এগুলো কোনো সমস্যা না। সামনের যে টুর্নামেন্টগুলো (প্রিমিয়ার লিগ) আছে সেগুলোতে ভালো করো। আমি তোমার বোলিং অবশ্যই দেখবো-’এভাবেই রানাকে আশ্বাস দিয়েছেন প্রধান কোচ।

প্রতিটি খেলোয়াড়েরই স্বপ্ন থাকে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার। রানাও এর ব্যতিক্রম নন। নিজেকে উজাড় করে খেলেছেন বঙ্গবন্ধু বিপিএলে। টানা দুই ম্যাচে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়ে চমকে দিয়েছিলেন। দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করার পরও জাতীয় দলে না ডাক পাওয়ায় মন খারাপ হয়নি রানার? ‘ভাই একটুতো মন খারাপ হয়েছে। আমারতো কিছু করার নাই। আমার কাজ খেলা, পারফরম্যান্স করা, উইকেট নেওয়া নিজেকে ফিট রাখা। আমার কাজ আমি করে যাব। বাকিটা পরে দেখা যাবে।’

দলে না ডাকা নিয়ে রানা আরও বলেন, ‘পারফরম্যান্স করা আমার কাজ আমি সেটা করছি। এখন উনারা আমাকে রাখবে কি রাখবে না সেটা উনাদের ব্যাপার।’

তাকে নিয়ে নির্বাচক হাবিবুল বাশার মুঠোফোনে আমাদের সময়কে বলেন, ‘তাকে বিবেচনায় রাখা হয়েছে। ও এই সিজনে বিপিএলে খুব ভালো খেলেছে। সামনে আরও অনেক খেলা আছে। অবশ্যই সুযোগ দেওয়া হবে।’

সামনেই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে রানা খেলবেন আবাহনীর হয়ে। এখন তার সকল দৃষ্টি এই লিগের দিকেই। রানা কী পারবেন আরও নজরকাড়া পারফরম্যান্স করে জাতীয় দলের দরজা খুলতে?

advertisement
Evaly
advertisement