advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নিশ্চয়ই কোনো অপরাধে জড়িত ছিলেন

শরিয়ত বয়াতি গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে সংসদে প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০৫
advertisement

কোনো অপরাধে যুক্ত থাকাতেই বাউলশিল্পী শরিয়ত বয়াতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বাউল গানের তো কোনো দোষ নেই। কিন্তু বাউল গান যারা করে বা ব্যক্তিবিশেষÑ সে যদি কোনো অপরাধে সম্পৃক্ত হয়, তা হলে আইন তার আপন গতিতে চলবে। আইনে যে ব্যবস্থা নেওয়ার সেটা নেবে। এর সঙ্গে গানের সম্পৃক্ততা নেই। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনুর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের একটি অভিযোগে শরিয়ত বয়াতিকে গ্রেপ্তারের তথ্য জানিয়ে হাসানুল হক ইনু বলেন, আইসিটি আইনে শরিয়ত বয়াতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ১০ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, বাউলশিল্পীদের চুল কেটে দেওয়া হচ্ছে। গ্রাম থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে। ৭৫-এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সামরিক শাসকেরা যে জবরদখলের রাজনীতি শুরু করেছিল, তখন যাত্রা, পালাগানসহ সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছিল; তার রেশ এখনও চলছে। আপনার সরকার বিশ্ব ঐতিহ্যের বাউল সম্প্রদায়কে

রক্ষা করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেবে কিনা?

জবাবে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, বাউল গানকে বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান করতে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, সেটা আমরা অর্জন করেছি। প্রশ্নকারীর উদ্দেশে তিনি বলেন, যারা বাউল গান গাচ্ছেন আর বাউল গান গাচ্ছেন বলেই তারা কেউ অপরাধের ঊর্ধ্বে, কোনো অপরাধ করেন না, বা করেননি, এ নিশ্চয়তা কি আপনি দিতে পারবেন? এটা তো ঠিক নয়। কে কী করছেন, ব্যক্তিবিশেষ, সেটার হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিশ্চয়ই কোনো অপরাধের সঙ্গে যুক্ত বলে বা অপরাধ সংগঠিত হয়েছে বলে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কাজেই বিষয়টির সঙ্গে ঐতিহ্যের কোনো সম্পর্ক নেই। বরং বলব, এরা এমন কোনো কাজ যেন না করে, আজকে যে বাউল গান বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে, সেটা যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয়। এ ব্যাপারে আমাদের সচেতন করা দরকার এবং তাদের সচেতন হওয়া দরকার। তিনি আরও বলেন, আর যদি কেউ অন্যায় করে, আমরা তা দেখব। তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেব। অহেতুক কারও চুল কাটা বা গানের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।

সামরিক শাসন আমলের প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় ছিলেন, সেখানে গণতান্ত্রিক ধারা ছিল না। সংবিধান লঙ্ঘন করে তারা ক্ষমতায় এসেছেন। একের পর এক ক্যু হয়েছে। মিলিটারি ডিক্টেটররা ক্ষমতায় এসেই রেডিও-টেলিভিশনে ঘোষণা দিয়েছেন, ‘আজ থেকে আমি রাষ্ট্রপতি হলাম।’ আর হয়েই তাদের প্রথম কাজ ছিল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা। সুইপারের কাজটাই তারা আগে করেছেন। প্রথমে দেখা যায়, রাস্তার পাশে কচু-ঘেঁচু যা থাকে, কেটেকুটে সাফ করেন। দেয়াল মুছে পরিষ্কার করেন। আবার কেউ সাইকেল চালিয়ে সাশ্রয় করেন। সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার পর দেখা যাচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে দামি গাড়ি নিয়ে চলে এসেছে। কেউ বলছেনÑ কৃচ্ছ্রসাধন করছি। এর পর টি-শার্ট পরে লেগে গেলেন। কিন্তু দেখা গেল প্যারিস থেকে স্যুট আসে। ফ্রেঞ্চ শিপন শাড়ি আসে। ওই সময়ের দামি ব্র্যান্ডের সানগ্লাস ‘রে-বেন’ পরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ রকম বহু নাটক মিলিটারি ডিক্টেটররা করেছেন। কাজেই (বাউলদের) চুল কাটাই শুধু নয়, এর বাইরেও অনেক কাজ তারা করেছে। তবে তাদের এসব উদ্যোগ বেশিদিন টেকে না, মাস ছয়েক থাকে। তারপরই চেহারা পাল্টে যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কুষ্টিয়ায় বাউলের ওই জায়গার উন্নয়ন আওয়ামী লীগ সরকারই করে দিয়েছে। সেখানেও বাধা পেয়েছি। প্রথমবার করতে গেলাম, তখন অনেকেই বাধা দিয়েছে। ঝুপড়ি, টুপড়ি করে তারা ওভাবেই থাকবে। পরে সুন্দর ঘর করে দেওয়া হয়েছে বাউল গানের ঐতিহ্য রক্ষার জন্য। এ কারণে বাউল গান বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে।

সংরক্ষিত আসনের আরমা দত্তের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের চার হাজার ৫৬৯টি ইউনিয়ন পরিষদে মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠান ছাড়াও সারাবছর ইউনিয়ন পর্যায়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উৎসবমুখর পরিবেশে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, দেয়াল পত্রিকা, স্মরণিকা প্রকাশ, কুইজ ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা ইত্যাদি আয়োজন করা হবে।

সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমানের প্রশ্নের জবাবে সংসদ নেতা বলেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য সরকার যথাযথ আইনি সংস্কার ও আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের বিচার দ্রুত সম্পন্ন হচ্ছে, তার প্রমাণ ফেনীর নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলা। মাত্র ৬২ কার্যদিবসে এ মামলার বিচার কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

advertisement