advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শনিবার শুরু আন্তর্জাতিক কিরাত সম্মেলন
মূল্যবোধ জাগ্রত করলেই বন্ধ হবে ইভটিজিং : সূফী মিজানুর রহমান

চট্টগ্রাম ব্যুরো
২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০৬
advertisement

মানুষের মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত করতে না পারলে ইভটিজিং ও নারী নির্যাতন বন্ধ হবে না বলে মন্তব্য করেছেন পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। বলেছেন, এজন্য ভালো মানুষ হওয়ার বিদ্যা অর্জন করতে হবে। মানুষের মূল্য বুঝতে এবং অনুধাবন করতে হবে। গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। আগামী শনিবার নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদে আন্তর্জাতিক কিরাত সম্মেলন উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে জর্ডান, ইরান, মিসর, তুরস্ক, মরক্কো, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশের কারিরা অংশগ্রহণ করবেন।

আন্তর্জাতিক কোরআন তিলাওয়াত সংস্থার (ইকরা) উদ্যোগে সম্মেলনের আয়োজন করছে শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদ। সহযোগিতায় রয়েছে আনজুমান-এ-রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট ও গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ।

সমাজের ভালো কাজে এবং মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, নারী নির্যাতন বন্ধ করতে হলে মূল্যবোধ জাগ্রত করার কোনো বিকল্প নেই। নারীর প্রতি সম্মান প্রদর্শনের শিক্ষা দিতে পারলেই অত্যাচার অনাচার বন্ধ হবে।

নিজের পীর শাহ সুফি আল্লামা আবদুস ছালাম ইছাপুরির (রা) একটি নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে সূফী মিজানুর

বলেন, ‘তিনি বলেছেন, কথা বলার সময় মনে রাখতে হবে; আমি যা বলছি তা আল্লাহ শুনছেন, যা করছি তা দেখছেন এবং মনে মনে যে চিন্তা করছি তাও জানেন। প্রতিটা কাজের আগে এই ধারণা থাকলে কোনো ধরনের অন্যায় হবে না।’

সংবাদ সম্মেলনে সূফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পিএইচপি ফ্যামিলির পরিচালক জহিরুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি জানান, নগরীর দামপাড়া জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদে শনিবার বিকাল ৩টায় কিরাত সম্মেলন শুরু হবে। বাদ আছর দেশের এবং বাদ মাগরিব বিদেশি কারিরা কিরাত পরিবেশন করবেন। মুসল্লিদের জন্য মসজিদ প্লাজা ও সামনের মাঠ এবং মসজিদের নিচে নারীদের জন্য প্রজেক্টরের মাধ্যমে তেলাওয়াত শোনার ব্যবস্থা থাকবে।

বিশ্বখ্যাত কারি মিসরের শাইখ আদিল আল-বায, ইরানের কারীম মানসুরী, তুরস্কের হুসাইন তুরকান, জর্ডানের সামিহ আল আসামেনাহ, মরক্কোর শাইখ আহমাদ আল খালদী, মালয়েশিয়ার ওয়ান আইনুদ্দীন হিলমী বিন আবদুল্লাহ, থাইল্যান্ডের মুয়াব মুস্তফা ও বাংলাদেশের শাইখ আহমদ বিন ইউসুফ আল-আযহারী কিরাত শুনাবেন।

সম্মেলনে আনজুমান-এ-রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সিনিয়র ভিপি মোহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি জেনারেল আনোয়ার হোসেন, গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, শহীদুল হক, কারি আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দিন, মুহাম্মদ খুরশেদুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

এ সময় মুহাম্মদ সিরাজুল মোস্তফা, সৈয়দ আবদুল লতিফ, মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক, ড. মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ, অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহমদ, হাফেজ মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ, সৈয়দ শেহাব উদ্দিন আলম, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, এসএম শফি, জাফর আহমদ সওদাগর, মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম, আবুল মনসুর সিকদার, খোরশেদ আলী চৌধুরী, মুহাম্মদ সিরাজুদৌলা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

advertisement
Evall
advertisement