advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সাকিবের শুভ কামনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:০৭
advertisement

একটা ঝড় বইয়ে গেছে তার ওপর দিয়ে। জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। নিষিদ্ধ না হলে তিনিই থাকতেন বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক। সবকিছু ঠিক থাকলে হয়তো তার নেতৃত্বে পাকিস্তান সফরে যেতেন টাইগাররা। মাঠের বাইরে থাকা বাংলাদেশের বিশ^সেরা এ অলরাউন্ডার মাঠের ক্রিকেটকে অনেক মিস করছেন। গতকাল লাইফবয়ের সঙ্গে আরও তিন বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘একটা জিনিসের সঙ্গে যখন অনেক দিনের সম্পর্ক থাকে, সেটি পছন্দের হোক বা না হোক, আপনি চান কিংবা না চান; সেটিকে মিস করবেনÑ এটিই স্বাভাবিক। আমার ক্ষেত্রেও ভিন্ন কিছু নয়। স্বাভাবিকভাবে আমিও মিস করছি।’

সাকিবকে ছাড়া ভারত সফরে গেছে বাংলাদেশ দল। ঘরোয়া টুর্নামেন্ট বিপিএলেও তার খেলা হয়নি। এবার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে গতকাল রাতে পাকিস্তানের উদ্দেশে উড়াল দেন টাইগাররা। নিরাপত্তা শঙ্কায় এ সফরে নেই মুশফিকুর রহিম। সাকিবের অনুপস্থিতিতে টি-টোয়েন্টি দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলে ফিরেছেন তামিম ইকবাল। এ ছাড়া মোস্তাফিজ, রুবেলদের মতো তারকা সব ক্রিকেটার আছে পাকিস্তান সফরের ১৫ সদস্যের বাংলাদেশ দলে। আগামীকাল সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। লাহোরে বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায় শুরু হবে লড়াই। জাতীয় দলের সতীর্থদের শুভ কামনা জানিয়েছেন সাকিব। তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে উইশ করছিÑ যেন নিরাপদভাবে, ভালোভাবে পৌঁছাতে পারে এবং খেলে ফিরে আসতে পারে। অবশ্যই যেন বাংলাদেশের জন্য সাফল্য নিয়ে আসতে পারে। শ্রীলংকা লাস্ট টাইম যখন গেল তারা ৩-০ তে জিতে এসেছে, আমাদেরও ভালো ফল করা উচিত।’ ক্রিকেটের বাইরে থাকলেও বাংলাদেশ দলের টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ হয় সাকিবের। বিশেষ করে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে। অবশ্য সব সময় যে ক্রিকেট নিয়ে কথা হয় তা নয়। সাকিব বলেন, ‘ প্রধান কোচের সঙ্গে রেগুলার কথা হয়, কোচিং স্টাফের সঙ্গে রেগুলার কথা হয়। শুধু খেলা নিয়ে কথা হতে হবে এমন নয়। অনেকের সঙ্গেই রেগুলার কথা হয় আমার।’ দুই বছরের জন্য আইসিসি নিষিদ্ধ করেছে সাকিবকে। তবে তার এক বছরের শাস্তি শিথিল করা হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি বছরের ৩০ অক্টোবর থেকে ফের ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন বাংলাদেশের বিশ^সেরা এ অলরাউন্ডার। কীভাবে ফিরে আসবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘আমি ফিরে আসা পর্যন্ত সেটির জন্য আপনাদের অপেক্ষা করতে হবে। আমি বললাম অনেক কিছু করে আসছি এবং আসার পর সেটি প্রমাণিত হলো না, সেটির ফল খুব একটা ভালো হবে না, গ্রহণযোগ্যতাও থাকবে না। সবকিছু যদি ঠিক থাকে সবকিছুর উত্তর সময়ে বলে দেব।’

বিশ্বের এক নম্বর হেলথ সোপ ব্র্যান্ড লাইফবয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে আরও তিন বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাকিব আল হাসান। লাইফবয়ের সঙ্গে সাকিব আল হাসানের পার্টনারশিপ এরই মধ্যে ৮ পেরিয়ে ৯ বছরে পদার্পণ করেছে। গতকাল আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লাইফবয়ের সঙ্গে সাকিব আল হাসানের পরবর্তী তিন বছরের পার্টনারশিপ নবায়নের ঘোষণা দেওয়া হয়। এ সময় ইউনিলিভার বাংলাদেশের মার্কেটিং ডিরেক্টর (বিউটি অ্যান্ড পারসোনাল কেয়ার) নাফিস আনোয়ার, স্কিন ক্লিনসিংয়ের ক্যাটাগরি হেড নাবিলা জাবীন খানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

advertisement
Evall
advertisement