advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নিরাপদে পাকিস্তানে পৌঁছেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০০:২৭ | আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০২০ ০৯:২৫
ছবি : বিসিবি
advertisement

সব আলোচনা ছাপিয়ে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে পৌঁছেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। লাহোরের স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১০টার পরে পৌঁছান ক্রিকেটাররা।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের অফিসিয়াল টুইটার পেইজ এক টুইটে টাইগারদের নিরাপদের পৌঁছার কথা নিশ্চিত করা হয়।

বুধবার রাত আটটায় বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ বিমানে করে পাকিস্তানের উদ্দেশে উড়াল দিয়েছে টাইগাররা। আগামীকাল সারা দিন বিশ্রাম নিয়েই পরদিন থেকেই খেলতে নেমে যাবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা। ২৪ তারিখ প্রথম টি-টোয়েন্টির পর দ্বিতীয় ও তৃতিয় টি-টোয়েন্টি হবে ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি।

সবগুলো খেলায় অনুষ্ঠিত হবে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। বাংলাদেশ সময় বিকেল তিনটায় শুরু হবে সবগুলো ম্যাচই।

ঢাকা ত্যাগ করার আগে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন সৌম্য সরকার, শফিউল ইসলাম ও মোহাম্মাদ মিঠুন। আমাদের সময়ের পাঠকদের জন্য হুবুহু তুলে ধরা হলো…

সৌম্য সরকার

অনেক সিনিয়রই নাই, থাকলে অবশ্যই ভালো হতো। অবশ্যই রেসপন্সিবলভাবে খেলতে হবে। চেষ্টা করব ওভাবে খেলার।  চেষ্টা তো করব দুই সাইডেই ১০০ শতাংশ দেবার জন্য। যেভাবেই সুযোগ পাই, যেখানেই সুযোগ আসে চেষ্টা করব ১০০ ভাগ দেবার।

দল হিসেবে প্রত্যাশা ভালো। যারা আমরা যাচ্ছি এবার সবাই বিপিএলে ভালো পারফর্ম করেছে। সবাই যদি বিপিএলের পারফরম্যান্সটা ধরে রাখতে পারে, তাহলে দলের রেজাল্টটা ভালো আসবে। নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা করলে তো করবই। যতটুকু পারি টেনশন কম করার চেষ্টা করব।

শফিউল ইসলাম

না, না, না নিরাপত্তা নিয়ে কোনো টেনশন না। যেহেতু বোর্ড সবকিছু চেক করেই পাঠাচ্ছে, তাই কোনো টেনশন নেই। ভালো করে দেশে যেনো ফিরতে পারি, ভালো কিছু নিয়ে আসতে পারি এটাই প্রত্যাশা।

আমিও লাস্ট ইমার্জিং কাপে গিয়েছি। নিরাপত্তা নিয়ে কোনো ইস্যু ছিলো না। এই কারণেই সাহসটা আরও বেশি পেয়েছি।  যেহেতু ন্যাশনাল টিমের খেলা বোর্ড আশ্বস্ত বলেই যাচ্ছে। আমার ব্যক্তিগত দিক থেকে কোনো আপত্তি নেই, বোর্ড সেফ ভেবেছে বলেই পাঠাচ্ছে।

মোহাম্মদ মিঠুন

টিম এক্সপেক্টেশন, অবশ্যই আমরা প্রতিটি ম্যাচই জেতার জন্য খেলব। ম্যাচ বাই ম্যাচ আমাদের সেরাটা দেবার চেষ্টা করব। আর পারসোনালি চেষ্টা করব আমি যে সময়েই নামি দলের জন্য অবদান রাখার জন্য। না, এখন আর নিরাপত্তা নিয়ে কোনো টেনশন নেই। আসলে একেক ম্যাচে একেক রকম সিচুয়েশন আসে। তো চেষ্টা করব যেরকম সিচুয়েশনেই নামি নিজের বেস্টটা দেবার।

advertisement