advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লিবিয়া থেকে ১৪৮ বাংলাদেশি দেশে ফিরলেন

৩০ জানুয়ারি ২০২০ ০১:১৫
আপডেট: ৩০ জানুয়ারি ২০২০ ০১:১৫
advertisement

লিবিয়া থেকে ১৪৮ বাংলাদেশি অভিবাসী দেশে ফিরেছেন। জাতিসংঘের অভিবাসন সংস্থা আইওএম তাদের ভলান্টারি হিউম্যানিটারিয়ান রিটার্ন (ভিএইচআর) কর্মসূচির মাধ্যমে ওই বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে এনেছে। ফিরে আসা বাংলাদেশিদের মধ্যে যুদ্ধাহত, সমুদ্র পথে ইউরোপ যেতে ব্যর্থ এবং লিবিয়ার জেলে বন্দি থাকা অভিবাসীরা রয়েছেন।
গতকাল দুপুরে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আইওএমের ভাড়া করা একটি বিশেষ প্লেনে ওই
অভিবাসীরা দেশে ফেরেন। এর আগে মঙ্গলবার লিবিয়ার মিসারত বিমানবন্দর থেকে প্লেনটি রওনা দেয়।
লিবিয়া থেকে দেশে ফেরা ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের মো. আকবর জানান, তিনি গ্রামের দালাল ধরে চার বছর আগে লিবিয়ায় গিয়েছিলেন। সেখানে একটি কারখানায় সামান্য বেতনে কাজ করতেন তিনি। হঠাৎ সেখানে বিমান হামলায় ৪ বাংলাদেশিসহ ১৩ জন মারা যান।
আইওএম জানায়, দেশে আসা আটজন অসুস্থ থাকায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ছাড়া এই অভিবাসীদের তৎক্ষণিক ও মানসিক সেবা, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তৈরি করা, স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং বাংলাদেশ সরকারের দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করতে সহায়তা করেছে আইওএম। ঢাকায় পৌঁছানোর পর বিমানবন্দরে আইওএম বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রত্যেককে খাবারসহ ৪ হাজার ৭৩০ টাকা দিয়েছে। আগামীতে এই অভিবাসীদের অর্থনৈতিক সহযোগিতাও করবে সংস্থাটি।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে বাংলাদেশ সরকার ও লিবিয়া কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় ২০১৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি বাংলাদেশিকে দেশে ফিরতে সহযোগিতা করছে আইওএম। বিশ্বব্যাপী ভিএইচআর প্রোগ্রামটির সহযোগিতায় ঝুঁকিপূর্ণ অভিবাসীদের প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ও সহায়তা দিয়ে থাকে জাতিসংঘের এ অভিবাসন সংস্থাটি।

advertisement
Evaly
advertisement