advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীদের আটক রেখেই কাশ্মীরে নির্বাচন

অনলাইন ডেস্ক
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৭:৩৭ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৭:৩৭
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

আগামী মাসে জম্মু ও কাশ্মীরে স্থানীয় নির্বাচন সম্পন্ন হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে ভারতের নির্বাচন কমিশন। গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের প্রায় ৭ মাস পর এই প্রথম সেখানে কোনও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড হতে চলেছে। আজ বৃহস্পতিবার ভারতীয় নির্বাচন কমিশনের বরাত দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে দেশটির সম্প্রচার মাধ্যম ‘এনডিটিভি’।

ওই প্রতিবেদনের তথ্য মতে, জম্মু ও কাশ্মীরে প্রায় ১৩ হাজার পঞ্চায়েত আসনে ওই নির্বাচন হবে। আগামী মার্চে মোট ৮ দফায় পঞ্চায়েতের আসনগুলিতে উপনির্বাচন হবে।

জম্মু ও কাশ্মীরের প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা শালিন্দর কুমার বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মীরে নির্বাচনী আচরণবিধি কার্যকর করা হয়েছে।’

এর আগে ২০১৮ সালে সেখানে শেষবারের মতো পঞ্চায়েত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তখন জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে সেখানকার দুটি বড় রাজনৈতিক দল পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি এবং ন্যাশনাল কনফারেন্স নির্বাচন প্রত্যাহার করে। এছাড়াও কাশ্মীরের অধিকাংশ মানুষই ওই নির্বাচন বয়কট করেছিল। ফলে ওই নির্বাচনে ১২ হাজারের বেশি পঞ্চায়েত আসন শূন্য থেকে যায়।

এদিকে জম্মু ও কাশ্মীরের প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ফারুক আবদুল্লা, তার ছেলে ওমর আবদুল্লা এবং মেহবুবা মুফতিকে গত কয়েকমাস ধরেই বন্দী করে রাখা হয়েছে। গত সপ্তাহে আবার জননিরাপত্তা আইনের আওতায় কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাকে বন্দী রাখার কথা ঘোষণা করে ভারত সরকার। তাদেরকে আটক রেখেই এবার নির্বাচন করতে যাচ্ছে মোদি সরকার।

 

advertisement