advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আরএসএস নেতাদের বিবৃতি
যুক্তরাষ্ট্রে গরুকে আমিষ খাওয়ানো হয়, দুধ আমদানি করবে না ভারত

অনলাইন ডেস্ক
১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৭:৫৪ | আপডেট: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৭:৫৪
পুরোনো ছবি
advertisement

এ মাসের শেষের দিকে ভারত সফর করবেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সে সময় একটি বাণিজ্য চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে। আর সে চুক্তির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দুধ আমদানির বিষয়টিও ছিল। কিন্তু রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) আপত্তির মুখে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দুধ আমদানি না করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ভারত।

আরএসএস’র পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের যুক্তরাষ্ট্রে গরুকে আমিষ খাওয়ানো হয়। অন্য প্রাণীর অঙ্গপ্রত্যঙ্গ, রক্তমাংস খাইয়ে গরুকে হৃষ্টপুষ্ট করে তোলা হয়। কিন্তু গোমাতাকে হতে হবে খাঁটি নিরামিষাশী। তবেই গোদুগ্ধ পবিত্র থাকবে। গোমাতা যদি নিজেই আমিষাশী হয়ে যায়, তা হলে তার দুধও আর নিরামিষ রইল না।

সঙ্ঘের নেতারা জানিয়ে দিয়েছেন, গরু আমিষ খেলে তার দুধও আমিষ হয়ে যায়। আমিষ দুধ পুজা বা যজ্ঞে কাজে লাগবে না। নিরামিষভোজী হিন্দুরাও আমিষ গোদুগ্ধ মুখে তুলতে পারবেন না।

আজ রোববার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়। 

আমিষ-নিরামিষ দুধের এই বিবাদেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশের গরুর দুধ এ দেশে ঢোকার ছাড়পত্র পাচ্ছে না। ফলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের সময় দু’দেশের বাণিজ্য চুক্তিও প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে আছে।

আর সঙ্ঘ পরিবারের এই ‘বাণী’ অক্ষরে অক্ষরে পালন করে মোদী সরকার আমেরিকাকে জানিয়ে দিয়েছে, এ দেশে আমিষভোজী গরুর দুধ বা অন্যান্য ডেইরি পণ্য পাঠানো চলবে না।

আমেরিকা অনেক দিন ধরেই চাইছে, তাদের দুধ ও ডেইরি পণ্যের জন্য ভারত তার বাজার খুলে দিক। কিন্তু মোদি সরকার আমিষাশী গরু নিয়ে আপত্তি তোলায় ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে মোদি সরকারের বাণিজ্য চুক্তি হবে কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে।

এদিকে আর মাত্র  ১০ দিন পরেই ‘ফার্স্ট লেডি’ মেলানিয়াকে নিয়ে ভারতে আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

সঙ্ঘ পরিবারের স্বদেশি জাগরণ মঞ্চর সাফ কথা, আমেরিকাকে লিখিতভাবে জানাতে হবে, এ দেশে যে সব গরুর দুধ পাঠানো হবে, তাদের যেন শুধু নিরামিষ খাবারই খাওয়ানো হয়।

স্বদেশী জাগরণ মঞ্চের যুগ্ম-আহ্বায়ক অশ্বিনী মহাজন বলেন, ‘এ দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধর্মবিশ্বাসে আঘাত লাগে, এমন কোনো পণ্যের জন্য দেশের বাজার খুলে দেওয়ার বিরোধিতা করব আমরা।’

advertisement
Evall
advertisement