advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে ফখরুল ফোন করেছেন, প্রমাণ আছে : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৪:১৬ | আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২০:২৮
ওবায়দুল কাদের। পুরোনো ছবি
advertisement

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোল প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ফোনালাপ নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক চরমে উঠেছে। বিএনপি মহাসচিব প্যারোল নিয়ে ফোনালাপের কথা অস্বীকার করার পর এবার ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তিনি ফোন করে খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে জানাতে অনুরোধ করেছেন, যার প্রমাণ আছে। রাজনীতিতে এত নীচে নামতে চান না বলেও জানান মন্ত্রী।

আজ মঙ্গলবার সকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে খুলনা বিভাগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব আমাকে ফোন করেছেন। ফোন করে অনুরোধ করেছেন বেগম জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একটু কথা বলার জন্য। অসত্য কথা কেন বলবো। তিনি আমাকে অনুরোধ করেছেন। তিনি কি প্রমাণ করতে চান তিনি অনুরোধ করেননি? তাহলে কিন্তু প্রমাণ দিয়ে দেব।’

তিনি আরও বলেন, ‘বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে নতুন নতুন নাটক করছে বিএনপি। পরিবার, দল ও নেতারা বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে যতটা ব্যাকুল তার থেকে বেশি রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা করছে।’

গত শুক্রবার ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা বিবেচনায় নিয়ে প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে আমার সঙ্গে ফখরুল ইসলাম আলমগীরের টেলিফোনে কথা হয়েছে। তিনি আমাকে অনুরোধ করেছেন, আমি যেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয়টি বলি।’

ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে আজ সকালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘খালেদা জিয়ার প্যারোলে আবেদনের বিষয়টি তার পরিবার দেখছে। এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি।’

উল্লেখ্য, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এরই মধ্যে তার কারাজীবনের দুই বছর কেটে গেছে। কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়ায় গত বছরের ১ এপ্রিল তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়। এখনো তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার ছয় স্বজন তাকে হাসপাতালে দেখে আসেন। বেরিয়ে এসে তারা জানান, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য তারা বিদেশ নিয়ে যেতে চান। এ জন্য প্যারোলে মুক্তি দিলে তাতে তাদের আপত্তি থাকবে না। অবশ্য প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে দ্বিধাবিভক্ত বিএনপি নেতারা।

advertisement
Evall
advertisement