advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মুশফিকের চোখ ছিল ট্রিপলে

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ২৩:৩৭
advertisement

টেস্ট ক্যারিয়ারে তৃতীয়, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয়বার ডাবল সেঞ্চুরির স্বাদ পেয়েছেন। ব্যক্তিগত ২০৩ রানে অপরাজিত থাকা বাংলাদেশের এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকানোর ইচ্ছে ছিল। তবে ইনিংস ঘোষণা করায় তা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে তার কণ্ঠে কিছুটা আক্ষেপ ঝরেছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনশেষে গতকাল নিজের পারফরম্যান্স, উদযাপন, দলীয় পরিকল্পনা ছাড়াও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন মুশফিকুর রহিম। নির্বাচিত অংশ তুলে ধরা হলোÑ

ডাবল সেঞ্চুরির পর অমন উদযাপনের কারণ কী ছিল?

মুশফিক : আমি আগে থেকে চিন্তা করিনি। আমার ছেলে আসলে ডাইনোসারের খুব বড় ফ্যান। ও সব সময় ডাইনোসার দেখলে অন্যরকম সেলিব্রেশন করে। ২০০ করার পর সেটিই জাস্ট করার চেষ্টা করছিলাম। আমার ডাবল সেঞ্চুরিটা ওর জন্য।

উযাপন কারও উদ্দেশে ছিল কিনা?

মুশফিক : সেঞ্চুরির পরের উদযাপনটা কারও উদ্দেশে ছিল না। আমি আসলে এ রকম করি, আমার যতটুকু ক্যারিয়ারই হয়েছে প্রতিশোধ বা প্রতিবাদের জন্য সেলিব্রেশন করিনি। আমি সব সময় মনে করি যে, আমি আমার নিজের সঙ্গে ফাইট করি। সত্যি কথা বলতে প্রি-প্ল্যান ছিল না। ডাবল সেঞ্চুরিটা যদি করতে পারি আমার ছেলের জন্য করব। ইন্সপায়ার ছিল যেটি আমাকে পুশ করেছে।

উইকেট কেমন ছিল?

মুশফিক : আমি মনে করি সবচেয়ে সহজ উইকেট ছিল। ব্যাটিংয়ের উইকেটটা অনেক আদর্শ। ওদের খুব বেশি আহামরি থ্রেট বোলার ছিল না। সুইং, রিভার্স সুইং বা স্পিন করানোর বোলার ছিল না। তাই একটু ইজি মনে হয়েছে আমার কাছে।

নিজেকে কি চাপমুক্ত মনে হচ্ছে?

মুশফিক : প্রেশার রিলিফের কিছু নেই। আপনি যদি খেয়াল করে দেখেন শেষ টেস্ট ইনিংসেও আমি ৭৪ (প্রতিপক্ষ ভারত) করেছি। এটি আমার কাছে কখনো প্রেশার মনে হয়নি। দলের জয়ে কীভাবে বেশি অবদান রাখতে পারি সব সময় সে চেষ্টা করি। আমার কাছে এটিই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর একটা লক্ষ্য ছিল, উইকেট যেহেতু খুবই ভালো আমাদের একটা দলীয় পরিকল্পনা ছিল টপ সিক্সের মধ্যে যে সেট হবে, আমরা ১০০, ১৫০ কিংবা ২০০ এ রকম যেন করতে পারি। মুমিনুল অনেক চেষ্টা করেছে, অনেক ভালো ব্যাট করেছে। টপে শান্তও ভালো ব্যাট করেছে। আমি সেট হয়ে ডাবল সেঞ্চুরি করতে পেরেছি। সবচাইতে ভালো দিক যে আমাদের দল এখন আল্লাহর রহমতে ভালো একটা অবস্থানে আছে। যেটি দরকার ছিল।

আপনার সামনে ট্রিপল সেঞ্চুরির সুযোগ ছিল। ইনিংস ঘোষণা করায় অবাক হয়েছেন কিনা?

মুশফিক : তা তো অবশ্যই, ইনশাল্লাহ হতো। আমি আসলে আশা করিনি এরকম ডিক্লেয়ার দেওয়া হবে। আমার নিজের কাছে মনে হয়েছিল যে আমাদের যতটুকু সময় ছিল অলমোস্ট ২ দিন। আর তার থেকে বড় ব্যাপার যে উইকেটে আমরা যত বেশি ব্যাট করব আরও কঠিন হবে। আমাদের চা বিরতির সময় ওরকম কোনো আলোচনা হয়নি। লাস্ট হাফ ঘণ্টার আগে জানতে পেরেছি যে লাস্ট ৬ থেকে ৮ ওভারের মতো ওদেরকে দেব। তার আগে তো পরিকল্পনা ছিল লিটন যদি থাকে (একটা ব্যাটসম্যান থাকলে) আমার জন্য একটু সহজ হয়। আমার পরিকল্পনা ছিল ও যদি একটা ১০০ করে ফেলে তা হলে আমারও ৩০০ রানের কাছে হবে। সেটি আজকে (সোমবার) না হলেও কাল (মঙ্গলবার) প্রথম সেশনে হয়ে যেত। কিন্তু আমি মনে করি যে ভবিষ্যতে যদি এ রকম সুযোগ আসে চেষ্টা করব সেটি কাজে লাগানোর। এখন পর্যন্ত যেটি হয়েছে দল ভালো একটা পজিশনে আছে।

advertisement
Evall
advertisement