advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় দুই ছাত্রকে মারধর

কলি হাসান,দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৯:২৯ | আপডেট: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৯:২৯
মারধরের শিকার মোশারফ ও ইসরাফিল
advertisement

পরীক্ষার সময় কৃষি ব্যবহারিক খাতা না দেখানোয় নেত্রকোনার দুর্গাপুরে মধুয়াকোনার এ ইউ আলিম মাদ্রাসার দুই ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে দুর্গাপুর দ্বীনি আলিম মাদ্রাসার গেটের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে বলে জানায় ভুক্তভোগী ওই দুই ছাত্র।

মারধরে শিকার দুই পরীক্ষার্থী হলো, মোশারফ হোসেন (১৬) ও ইসরাফিল মিয়া (১৬)।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গতকাল দুপুরে ওই দুই পরীক্ষার্থীকে মারধর করে দুর্গাপুর দ্বীনি আলিম মাদ্রাসার তিন ছাত্র। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের আওতায় দুর্গাপুর দ্বীনি আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ওই কেন্দ্রে মধূয়াকোনা এ ইউ আলিম মাদ্রাসার ছাত্ররা পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে।

ভুক্তভোগী ওই দুই পরীক্ষার্থী আরও জানায়, দুজনেই দ্বীনি দাখিল মাদ্রাসার পরীক্ষা কেন্দ্রে শুরু থেকে প্রথম সিটে বসে পরীক্ষা দিয়ে আসছে। তাদের পেছনের সিটে বসে পরীক্ষা দিচ্ছিল ওই মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী নুরুল্লাহ (১৬), নুরু (১৬) ও ইমরান (১৬)।

তিনজনের মধ্যে নুরুল্লাহ প্রথম পরীক্ষা থেকেই মোশারফ ও ইসরাফিলকে পরীক্ষার খাতা দেখে লেখার জন্য সুযোগ দিতে বলে। কিন্তু খাতা দেখাতে রাজি ছিল না তারা। দ্বিতীয় পরীক্ষায়ও তাদের খাতা দেখাতে বলে ওই তিন ছাত্র। বিষয়টি কেন্দ্রে উপস্থিত পরিদর্শককে জানায় মোশারফ ও ইসরাফিল। কিন্তু তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি।

পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় মোশারফ ও ইসরাফিলকে হুমকি দিতে শুরু করে নুরুল্লাহ, নুরু ও ইমরান। গতকাল বুধবার কৃষি ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষে কেন্দ্র থেকে বের হচ্ছিল মোশারফ ও ইসরাফিল। এ সময় ওই তিন ছাত্র পেছন দিক থেকে এসে তাদের মাথার পেছনে এলোপাতাড়ি মারতে শুরু করে। পরে অন্যান্য পরীক্ষার্থীরা দৌঁড়ে এলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় তারা।

ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় সাংবাদিকরা বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে যান দ্বীনি আলিম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও কেন্দ্র সচিব আব্দুর রহমানের কাছে। এ সময় তিনি ওই ছাত্রদের বিচার করতে পারবেন না বলে জানান। কারণ হিসেবে বলেন, ‘তারা বেয়াদব ও উশৃঙ্খল।’

পরে তিনি আবার বলেন, ‘ঘটনাটি আমি মিমাংসার চেষ্টা করছি। দুই পরিবারের অভিভাবকে ডেকে বিষয়টি মিমাংসা করা হবে।’

এ ঘটনায় মধুয়াকোনা এ ইউ আলিম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আজিজুল ইসলাম দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, ‘আমার দুই দাখিল পরীক্ষার্থীকে মারপিটের বিষয়টি আমি শুনে কষ্ট পেয়েছি। এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও কেন্দ্র সচিব, এটি আমার দাবি।’

এ বিষয়ে উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার নাসির উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। আমি দুটি প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের বলেছি বিষয়টি মিমাংসার জন্যে। যদি তারা ব্যর্থ হয় তাহলে বিষয়টি ইউএনওকে জানাতে বলেছি।’

এ বিষয়ে পরীক্ষা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারজানা খানম বলেন, ‘এ বিষয় আমাকে কেউ জানায়নি। আমি এ ব্যাপারে খোঁজ নিচ্ছি।’

advertisement
Evall
advertisement