advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর আর ভরসা কইরেন না : ফারুকী

বিনোদন প্রতিবেদক
২৩ মার্চ ২০২০ ১২:৩৫ | আপডেট: ২৩ মার্চ ২০২০ ১৬:০৮
নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। ফাইল ছবি
advertisement

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আতঙ্কে এখন পুরো বিশ্ব। দিন দিন বাড়ছে সংক্রমণ। এ নিয়ে সারা বিশ্বের মানুষই এখন উদ্বিগ্ন। কোনোভাবেই আটকানো যাচ্ছে না মৃত্যুর মিছিল। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ইতোমধ্যেই হানা দিয়েছে বাংলাদেশে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মারা গেছেন দু’জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ জন।

এমন পরিস্থিতিতে দেশ ও জাতীর উদ্দেশ্যে সরকারের পাশাপাশি নানা সচেতনতামূলক বার্তা দিচ্ছেন শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রচার করা হচ্ছে অসংখ্য সচেতনবার্তা।

জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী তার ফেসবুকে লিখেছেন- ‘আমেরিকার আর্মি নাকি চিন্তা করছে নিউইয়র্ক সিটির হোটেলগুলাকে হাসপাতালে পরিণত করার। যত হাসপাতাল আছে সব রোগীতে ভরে যাচ্ছে। তাই তাদের এই ভাবনা। আর আমরা হাসপাতাল থাকার পরও কাজে লাগাবো না? এই তিনদিনে কতগুলা মন ভেঙে দেয়ার ঘটনা যে শুনেছি। জ্বর হয়েছে, কোনো প্রাইভেট হাসপাতাল নিচ্ছে না। কাশি হয়েছে, নিচ্ছে না। ডায়রিয়া হয়েছে, নিচ্ছে না। আজকে শুনলাম কিডনির রোগীর ডায়লাইসিস করাবে, ইউনাইটেড হাসপাতাল করবে না। কারণ রোগী কিছুদিন আগে ইন্ডিয়া থেকে এসেছে। হচ্ছেটা কী দেশে? মানুষ কী বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে?’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘কেন প্রাইভেট হাসপাতালগুলাকে করোনা চিকিৎসা করার জন্য প্রস্তুত করা হবে না? নির্ধারিত সরকারি হাসপাতাল কয়জনের চিকিৎসা দিতে পারবে? করোনা ছাড়াও মানুষের জ্বর, শ্বাসকষ্ট হতে পারে। তাদের কি চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার নাই? করোনা রোগীরও কী চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার নাই? সরকারে থাকা বন্ধুরা, আপনারা কী দয়া করে এই জিনিসগুলা অ্যাড্রেস করতে পারেন? নিশ্চিত করতে পারেন মানুষ যে কোনো রোগ নিয়ে যে কোনো হাসপাতালে গেলেই চিকিৎসা পাবে। তার জন্য যা যা করা দরকার, পিপিই-ট্রেনিং যা লাগে দ্রুত করান। দরকার লাগে হাই পাওয়ার টাস্কফোর্স করেন টপ ডাক্তার আর সশস্ত্র বাহিনীর লোকজন দিয়ে।’

সবশেষে ফারুকী লিখেছেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর আর ভরসা কইরেন না এই বেলা। দুই মাস সময় পাইয়াও তারা যে নিদারুণ অযোগ্যতা আর অবহেলার পরিচয় দিছে, তার জন্য তাদেরকে ইতিহাসের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।’

advertisement
Evall
advertisement