advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনা মহামারিতে টাইগারদের অনুদান

অনলাইন ডেস্ক
২৫ মার্চ ২০২০ ১৩:৫৮ | আপডেট: ২৫ মার্চ ২০২০ ১৪:০৯
পুরোনো ছবি
advertisement

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন সেলিব্রেটিদের অর্থ দান করার খবর আসছে। ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, লিওনেল মেসিদের অর্থ দান করার খবর রীতিমত ভাইরাল। শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের তহবিল গঠন, গৌতম গম্ভীরের অনুদানের খবরও পাওয়া গেছে। এবার খবর আসলো বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের তরফ থেকে অনুদান দেওয়ার।

বাংলাদেশ দলের মোট ২৭ জন ক্রিকেটার তাদের বেতনের অর্ধেক দান করেছেন করোনা মোকাবেলার সরকারি তহবিলে। মোট ৩০ লাখ ১৫ হাজার টাকা দান করেছেন ক্রিকেটাররা।

বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ জন তো বটেই এছাড়াও ইদানিংকালে বাংলাদেশ দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন বা স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন এমন আরও ১০ জন এই অনুদান প্রদান করেছেন। চলতি মাসে তারা যে বেতন পেতেন প্রত্যেকে তার অর্ধেক পরিমাণ অনুদান তহবিলে দিয়েছেন।

এই নিয়ে নিজের ফেসবুক ভেরিফায়েড আইডি থেকে আজ বুধবার দুপুরে লিটন দাস লেখেন,

সবাইকে আদাব ও সালাম,

আপনারা সবাই জানেন করোনাভাইরাসের সংক্রমণে চারদিকে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯ রোগ। এই রোগ প্রতিরোধে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে যার যার জায়গা থেকে।

সেটির অংশ হিসেবে আমরা ক্রিকেটাররা একটা উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি, যেটি হয়তো অনুপ্রাণিত করতে পারে আপনাদেরও। বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থাকা ও গত তিন মাসে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা আমরা মোট ২৭ ক্রিকেটার এক মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে একটা তহবিল গঠন করেছি। এই তহবিল ব্যয় হবে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ও সাধারণ মানুষ, যাদের গৃহবন্দী থাকা অবস্থায় জীবন চালিয়ে নিতে অনেক কষ্ট হয়।

আমাদের তহবিলে জমা পড়েছে প্রায় ৩০ লাখ টাকার মতো। কর কেটে থাকবে ২৬ লাখ টাকা। করোনার বিরুদ্ধে জিততে হলে আমাদের এই উদ্যোগ হয়তো যথেষ্ট নয়। কিন্তু যাদের সামর্থ্য আছে সবাই যদি একসঙ্গে এগিয়ে আসেন কিংবা ১০ জনও যদি এগিয়ে আসেন, এই লড়াইয়ে আমরা অনেক এগিয়ে যাব।

হ্যাঁ, এরই মধ্যে করোনা মোকাবিলায় অনেকে এগিয়ে এসেছেন। তাদের অবশ্যই সাধুবাদ জানাই। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে যদি আরও অনেকে এগিয়ে আসেন, তাহলে আমরা এই লড়াইয়ে জিততে পারব । সেই সহায়তা হতে পারে ১০০, ৫০০০ কিংবা ১ লাখ টাকা দিয়ে। টাকা দিয়ে না হোক, হতে পারে দুস্থ মানুষকে খাবার কিনে দিয়ে। আসুন পুরো দেশকে আমরা একটা পরিবার ভেবে চিন্তা করি এবং এই বিপদে সবাই সবাইকে সহায়তা করি। 

সৃষ্টিকর্তা আমাদের নিশ্চয়ই রক্ষা করবেন। সবাই ঘরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন। এবং করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের নিয়মগুলো মানুন। কঠিন এই পরস্থিতি আমরা কাটিয়ে উঠবই একসময় ।

যে যত অনুদান দিলেন (বেতনের অর্ধেক)-

১. তামিম ইকবাল খান- ৩২৫,০০০

২. মুশফিকুর রহিম- ৩১০,০০০

৩. লিটন কুমার দাস- ১৩৭,৫০০

৪. মেহেদী হাসান মিরাজ- ১৩৭,৫০০

৫. তাইজুল ইসলাম- ১২৫,০০০

৬. মোহাম্মদ মিঠুন- ১০০,০০০

৭. নাজমুল হোসেন শান্ত- ৭৫,০০০

৮. মুমিনুল হক- ১৬৫,০০০

৯. নাইম হাসান- ৫০,০০০

১০. আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি- ৫০,০০০

১১. এবাদত হোসেন চৌধুরী- ৫০,০০০

১২. মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ- ২১৫,০০০

১৩. সৌম্য সরকার- ১৫০,০০০

১৪. মুস্তাফিজুর রহমান- ১৫০,০০০

১৫. মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন- ৭৫,০০০

১৬. আফিফ হোসেন ধ্রুব- ৫০,০০০

১৭. মোহাম্মদ নাইম শেখ- ৫০,০০০

১৮. শফিউল ইসলাম- ১৫০,০০০

১৯. মাশরাফি বিন মর্তুজা- ২২৫,০০০

২০. আল আমিন হোসেন- ৭৫,০০০

২১. মেহেদী হাসান- ৫০,০০০

২২. হাসান মাহমুদ- ৫০,০০০

২৩. মোহাম্মদ সাইফ হাসান- ৫০,০০০

২৪. ইয়াসির আলি চৌদুরী রাব্বি- ৫০,০০০

২৫. তাসকিন আহমেদ- ৫০,০০০

২৬. নাসুম আহমেদ- ৫০,০০০

২৭. আমিনুল ইসলাম বিপ্লব- ৫০,০০০

advertisement