advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নাইক্ষ্যংছড়ি লকডাউনের পর ইউএনও ‘কোয়ারেন্টিনে’, আইসোলেশনে স্বামী

মুফিজুর রহমান,নাইক্ষ্যংছড়ি
২৫ মার্চ ২০২০ ২১:৪১ | আপডেট: ২৬ মার্চ ২০২০ ০০:১৬
নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও সাদিয়া আফরিন কচি। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় লকডাউন ঘোষণা করা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন কচি ‘হোম কোয়ারেন্টাইনে’ গেছেন। করোনাভাইরাসে এক নারী আক্রান্ত হওয়ার পর তার চিকিৎসার তত্ত্বাবধানে থাকা কচির স্বামী ডা. মো. ইউনুছ আইসোলেশনে গেলে নিজ উদ্যোগে কোয়ারেন্টাইনে যান এই ইউএনও।

গতকাল বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু জাফর মো. ছলিম।

ছলিম জানান, গতকাল মঙ্গলবার কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মুসলিমা খাতুন নামে যে নারীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়, তার চিকিৎসার তত্ত্বাবধানে ছিলেন কচির স্বামী ডা. মো. ইউনুছ। ওই নারীর শরীরের নমুনা পরীক্ষা করার পর প্রতিবেদনে করোনার উপস্থিতি পেয়ে একই হাসপাতালে আইসোলেশনে যান ইউনুছ। বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করে কোভিট-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে হোম কোয়ারেন্টিনে যান নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও।

এদিকে ইউএনও সাদিয়া আফরিন কচি হোম কোয়ারেন্টিনে থাকায় উপজেলা প্রশাসনের কার্যক্রমে ধীরগতি দেখা দিয়েছে। উপজেলা প্রশাসনিক কার্যালয়ে গিয়ে কথা বলে জানা গেছে, ইউএনও না থাকায় পরবর্তী প্রশাসনিক দায়িত্বভার কে পালন করছেন, তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি অন্যান্য কর্মকর্তারা।

কারণ, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তার রোধ করতে নাইক্ষ্যংছড়িতে লকডাউন জারি করে গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নির্বাহী কর্মকর্তা হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যান।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার ইউএনও ম্যাডামের স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নাইক্ষ্যংছড়ি লকডাউন ঘোষণা পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। উপজেলা লকডাউন করার পর স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএস আবু জাফরের কাছে জানতে পারি, ইউএনও ম্যাডাম কোয়ারেন্টিনে আছেন।

advertisement
Evall
advertisement