advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ঝুঁকির মুখে বিশ্ব খাদ্য নিরাপত্তা

আমাদের সময় ডেস্ক
২৭ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৭ মার্চ ২০২০ ০৪:১০
প্রতীকী ছবি
advertisement

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে পৃথিবীর ২০০টির মতো দেশে। ইতোমধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ এবং মৃত্যু হয়েছে ২১ হাজারের। ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাবে বিশ্বের অর্ধেক মানুষ অবরুদ্ধ দশায় চলে যাওয়ায় বিশ্ব খাদ্য নিরাপত্তা ঝুঁকির মুখে পড়েছে।

করোনা ভাইরাসকবলিত প্রায় প্রতিটি দেশে আতঙ্কিত মানুষ টয়লেট পেপার ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার নানা উপকরণের মতো গৃহস্থালি পণ্য কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন। এতে বিভিন্ন দেশের সুপারমার্কেটগুলো ফাঁকা হয়ে গেছে।

মহামারীতে সরবরাহব্যবস্থা বিঘ্নিত হয়ে পড়লে নিজেদের জনগণ যাতে সমস্যায় না পড়ে সে জন্য কোনো কোনো দেশ খাদ্যপণ্য রপ্তানিতে এখনই লাগাম দিতে পারে। কিন্তু বিশ্বে পর্যাপ্ত খাদ্যশস্য রয়েছে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিশ্বের তৃতীয় চাল রপ্তানিকারক দেশ ভিয়েতনাম এবং নবম গম রপ্তানিকারক কাজাখস্তান অভ্যন্তরীণ জোগানের কথা চিন্তা করে এরই মধ্যে এসব খাদ্যশস্য রপ্তানি সীমিত করার উদ্যোগ নিয়েছে। বিশ্বের শীর্ষ চাল রপ্তানিকারক ভারত মাত্রই তিন সপ্তাহের লকডাউনে গেছে; ফলে অনেক সরবরাহ চ্যানেল বন্ধ হয়ে গেছে।

এদিকে রাশিয়ার ভেজিটেবল অয়েল ইউনিয়ন সূর্যমুখীর বীজ রপ্তানি সীমিত করার আহ্বান জানিয়েছে এবং বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ পাম তেল উৎপাদনকারী দেশ মালয়েশিয়ায় এই তেলের উৎপাদন কমে গেছে। এদিকে ইরাক ঘোষণা দিয়েছে যে তাদের ১০ লাখ টন গম ও আড়াই লাখ টন চাল দরকার। দেশটির ‘ক্রাইসিস কমিটি’ খাদ্য মজুদের পরামর্শ দেওয়ার পর তারা এ ঘোষণা দিয়েছে। রপ্তানি ও আমদানিকারক উভয়পক্ষ থেকে একইসঙ্গে এ ধরনের তৎপরতায় কৃষিপণ্য ব্যবসায়ীদের মধ্যে খাদ্যপণ্যের সরবরাহে অহেতুক বিঘ্ন ঘটার শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর চাল ও গমের উৎপাদন রেকর্ড ১.২৬ বিলিয়ন টন হতে চলেছে। এই পরিমাণ উৎপাদন হলে তা বিশ্বের চাহিদা মিটিয়ে আরও উদ্বৃত্ত থাকবে। তবে রপ্তানিতে আরও বিধিনিষেধ আসার শঙ্কায় এরই মধ্যে বিশ্ববাজারে চালের দাম বেড়ে গেছে।

থাইল্যান্ডে চালের দাম এরই মধ্যে বেড়ে টন প্রতি ৪৯২ দশমিক ৫ ডলারে উঠেছে, যা ২০১৩ সালের আগস্টের পর সর্বোচ্চ। এই বছর বিশ্বে চালের মজুদ ১৮০ মিলিয়ন টন ছাড়িয়েছে, যা ২০১৫-১৬ সময়ের চেয়ে ২৮ শতাংশ বেশি।

advertisement