advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনা চিকিৎসায় ঢাকায় চীনের মতো হাসপাতাল, এলাকাবাসীর বাধায় কাজ বন্ধ!

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৮ মার্চ ২০২০ ১৫:৩৯ | আপডেট: ২৮ মার্চ ২০২০ ১৮:৪৪
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় চীনের মতো করে রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চ‌ল থানা এলাকায় আকিজ গ্রুপের হাসপাতাল তৈ‌রির কাজে বাধা দিয়েছে এলাকাবাসী। আজ শনিবার দুপুরে এলাকাবাসী সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান নেয় ও প্রতিবাদ জানায়। এ ঘটনার পর আকিজ গ্রুপের পক্ষ থেকে এক নোটিশ ঝুলিয়ে হাসপাতাল নির্মাণ কাজ বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আজ দুপুরে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চ‌ল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী হোসেন জানিয়েছেন, ‘এই এলাকার কিছু মানুষ সেখানে গিয়ে কাজে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছিল। তাদের দাবি, তেজগাঁও একটি আবাসিক এলাকা। তাই এখানে এমন একটি হাসপাতাল বানালে ঝুঁকি বাড়তে পারে। এজন্য তারা এসেছিল।’

ওসি আরও বলেন, ‘এমন ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয় কাউন্সিলর দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকার মানুষকে বুঝিয়েছেন। তারা চলে গেছেন। এখন আর কোনো সমস্যা নেই।’

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য চীনের মতো বাংলাদেশেও অস্থায়ী এ হাসপাতালটি তৈরি করার উদ্যোগ নেন দেশের অন্যতম শীর্ষ করপোরেট প্রতিষ্ঠান আকিজ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) শেখ বশির উদ্দিন। তিনি নিজ উদ্যোগে তেজগাঁওয়ে দুই বিঘা জমিতে উহানের লেইশেনশান হাসপাতালের মতো করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য একটি অস্থায়ী হাসপাতাল তৈরি করা শুরু করেন।

জানা গেছে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে হাসপাতালটির নির্মাণ শেষ হওয়ার কথা ছিল। সেইসঙ্গে পরবর্তী এক সপ্তাহের মধ্যে চিকিৎসা সরঞ্জাম বসানোর কথা ছিল। এরপর বিনামূল্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার কথা ছিল সেখানে। বশির উদ্দিনকে এ কাজে সহায়তা দিচ্ছিলেন দুজন স্বনামধন্য অভিজ্ঞ চিকিৎসক।

গতকাল শুক্রবার এ বিষয়ে জানতে চাইলে শেখ বশির উদ্দিন বলেন, ‘হাসপাতাল নির্মাণে কাজ করছি। খুবই ব্যস্ত সময় পার করছি। দেশের এ ক্রান্তিকালে কথা বলার চেয়ে কাজ করা বেশি উত্তম। তাই আগে কাজটা শেষ করতে চাই। সবার সহযোগিতা চাই।’

প্রসঙ্গত, চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ ভাইরাসে দেশে প্রাণ গেছে ৫ জনের। আর বিশ্বব্যাপী আক্রান্ত হয়েছে সাড়ে ৫ লাখ মানুষ।

advertisement
Evall
advertisement