advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২০ ০৮:২৫
পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। পুরোনো ছবি
advertisement

করোনা ভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য ও গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুশিয়ার করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশ নিয়মিত ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম মনিটর করছে। ইতোমধ্যে যারা করোনা নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশ পুলিশকে ওভারসিস চায়নিজ অ্যাসোসিয়েশন ইন বাংলাদেশ (ওসিএআইবি) কর্তৃক করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই), মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস, স্যানিটাইজার হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন আইজিপি।

আইজিপি বলেন, ‘বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে যাবেন না। অতিজরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। জনগণের সঙ্গে পেশাদার, সহিষ্ণু ও মানবিক আচরণ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

আইজিপি আরও বলেন, ‘করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি ইউনিট শুরু থেকেই একযোগে কাজ করছে। পুলিশ সদস্যদের করণীয়-বর্জনীয় সম্পর্কে নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছে। যেসব পুলিশ সদস্য করোনা ভাইরাসে মৃত ব্যক্তিদের জানাজা ও দাফনে অংশ নিচ্ছে, তাদের মধ্যে বিশেষ পিপিইসহ অন্যান্য সুরক্ষা উপকরণ সরবরাহ করা হয়েছে। পুলিশ করোনা রোধে সচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে দেশব্যাপী ব্যাপক প্রচার চালাচ্ছে। এ কাজে মাইকিং করা হচ্ছে। প্রয়োজনে মসজিদের মাইকও ব্যবহার করা হচ্ছে। স্থানীয় ক্যাবল টিভির মাধ্যমেও প্রচার চালানো হচ্ছে। প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ায় নিয়মিত জরুরি নির্দেশনা প্রচার করা হচ্ছে।’

জাবেদ পাটোয়ারী আরও বলেন, ‘পুলিশ সদস্যরা জনগণের মাঝে মাস্ক, স্যানিটাইজার, জীবাণুুনাশক বিতরণ করছে। পুলিশের গাড়ি দিয়ে সীমিত পরিসরে বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। কোয়ারেন্টিনে থাকা মানুষদের বাড়িতে খাবারও পাঠাচ্ছে পুলিশ। টেলিফোন করলে তাদের বাড়িতে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পাঠানো হচ্ছে। ডিএমপি, সিএমপির মতো বড় বড় পুলিশ ইউনিট দুস্থদের মাঝে বিনামূল্যে খাবার বিতরণ করছে।’

পুলিশ বিদেশ ফেরতদের তালিকা সংশ্লিষ্ট এসপিদের কাছে প্রেরণ করে নিয়মিত মনিটরের আওতায় নিয়ে এসেছে উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, বিদেশ ফেরতদের বাড়িগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস সম্পর্কে পুলিশের সার্বিক কার্যক্রম মনিটর করার জন্য পুলিশ সদর দপ্তরে সার্বক্ষণিক মনিটরিং সেল কাজ করছে।

advertisement