advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দুদিনে নতুন কেউ আক্রান্ত হয়নি

সুস্থ হয়েছেন ১৫ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০৯
advertisement

এর আগের দিনের মতো দেশে গত ২৪ ঘণ্টায়ও নতুন করে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। দেশে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৮ জন। এর মধ্যে ১৫ জন সুস্থ হয়ে গেছেন। গতকাল রবিবার দুপুরে অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভিন্ন ল্যাবরেটরিতে ১০৯ জনের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করে আমরা নতুন কোনো আক্রান্ত রোগী পাইনি। এ নিয়ে পরপর দুই দিন বাংলাদেশে নতুন করে কেউ শনাক্ত হয়নি। অতএব আক্রান্ত যা ছিল তাই আছে। দেশে এই পর্যন্ত মোট নিশ্চিত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৮ জন। আইইডিসিআরের হটলাইনে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কল এসেছে ২ হাজার ৭২৬টি।

এদিকে সারাদেশে করোনা সন্দেহে বিভিন্ন ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আবার অনেককে কোয়ারেন্টিন শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

নাটোর : বাগাতিপাড়ায় করোনার উপসর্গের সঙ্গে মিল থাকায়

এক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকে রাজশাহী মেডিক্যালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। রাত পৌনে ৯টার দিকে তার বাড়ি থেকে রাজশাহী পাঠানো হয়। তার শরীরে সর্দি, জ্বর ও কাশি রয়েছে। ওই ছাত্রের পরিবারের দাবি সে নিউমোনিয়ায় ভুগছে।

গত ১৯ মার্চ ঢাকা থেকে ওই ছাত্রটি বাগাতিপাড়া উপজেলায় তার নিজ বাড়িতে আসেন। তার শরীরে সর্দি, জ্বর, গলাব্যথা ও কাশি থাকায় তিনি এক চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিন্তু বেশ কয়েকদিনে তিনি সুস্থ না হওয়ায় গ্রামবাসী আতঙ্কিত হয়ে বিষয়টি বাগাতিপাড়া প্রশাসনকে জানায়। এরপর বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের পক্ষ থেকে ওই যুবককে বাগাতিপাড়া মেডিক্যালে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিলে তিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাননি। এ অবস্থায় বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের একটি মেডিক্যাল টিম অ্যাম্বুলেন্স করে তাকে রাজশাহীতে পাঠায়।

গাজীপুর : ইতালি ফেরত ৩৬ প্রবাসীকে মেঘডুবি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। গতকাল রবিবার জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

এর আগে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস পর্যবেক্ষণে ৪৪ জনকে ১৪ মার্চ আশকোনা হজক্যাম্প থেকে গাজীপুর মহানগরীর মেঘডুবিতে অবস্থিত ২০ শয্যাবিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে আনা হয়। পরে সেখানে তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল।

গাইবান্ধা : গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকার পর তাদের করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কোনো প্রমাণ না পাওয়ায় ১২ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আমেরিকা প্রবাসী দুজনসহ তার সংস্পর্শে আসা আরও দুজনসহ মোট চারজনকে জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ও অপরজন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আইসোলেশনে রয়েছে। এ ছাড়া আরও ২৮ জনকে নতুন করে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে।

বগুড়া : করোনা সন্দেহে দুই রোগীকে ভর্তি করা হয়েছে মোহাম্মদ আলী বিশেষায়িত হাসপাতালে। তাদের মধ্যে ৪০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির বাড়ি বগুড়ার ধুনটে এবং ২৬ বছর বয়সী যুবক কুমিল্ল­া থেকে তার বাবার কর্মস্থল বগুড়ার কাহালুতে এসে অসুস্থ হয়ে পড়েন। রবিবার দুপুরের পর তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

advertisement