advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিসিবি চিকিৎসকদের দুই নির্দেশিকা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২০ ০০:৩৫
advertisement

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। গৃহবন্দি মানুষ। ক্রিকেটাররাও এর বাইরে নন। ঘরে সময় কাটছে তাদের। দীর্ঘ সময় ঘরে অবস্থানের ফলে চলে আসতে পারে অবসাদ। হতাশা কাজ করতে পারে। এ সময় মনোবল দৃঢ় রাখতে হবে। থাকতে হবে মানসিক ভাবে চাঙ্গা। ক্রিকেটারদের জন্য বিষয়টি আরও গুরুত্বপূর্ণ। কেননা দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন তারা। মাঠে তাদের পারফরম্যান্সেই গর্ববোধ করে দেশের মানুষ। ক্রিকেটাররা দেশের মুখ উজ্জ্বল করেন বিশ্বজুড়ে। দীর্ঘ বিরতির পর স্কিলে ফিরতে হলে ফিটনেস ধরে রাখা ছাড়া বিকল্প নেই খেলোয়াড়দের। করোনা ভাইরাসের এই মহাদুর্যোগের সময় ক্রিকেটারদের টাইম টু টাইম পরামর্শ, উপদেশ দিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) চিকিৎসকরা। পুরো দেশ লকডাউন হওয়ার আগে খাদ্যাভ্যাস, ফিটনেস ধরে রাখার কৌশলসহ নানা উপদেশসংবলিত একটি নির্দেশিকা প্রত্যেক ক্রিকেটারকে ই-মেইলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গত শনিবার আরও একটি নির্দেশিকা ক্রিকেটারদের পাঠানো হয়েছে বলে আমাদের সময়কে নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশিস চৌধুরী। দ্বিতীয় নির্দেশিকায় ক্রিকেটারদের মানসিকভাবে শক্ত থাকাসহ বেশ কিছু নিয়ম রয়েছে। সময় পরিবর্তিত হয়েছে। তাই নতুন রুটিন ফিক্সড করা হয়েছে। পর্যাপ্ত ঘুম, খাদ্যাভ্যাসেও পরিবর্তন এসেছে। ক্রিকেটারদের মেডিটেশন করা, মোবাইল, টেলিভিশন কিংবা কম্পিউটারের স্ক্রিনে চোখ রাখার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। অ্যাথেনটিক সোর্স ছাড়া করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত কোনো তথ্য জানতে বারণ করা হয়েছে। অনুশীলনের বেসিক ঠিক রাখা, নিয়মিত ব্যায়াম করা ইত্যাদি কীভাবে করতে হবে সেই খুঁটিনাটি বিষয় উপদেশ বার্তায় রয়েছে। এ ছাড়া রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য প্রোটিন জাতীয় খাবার বেশি বেশি করে খাওয়া, ফল-মূল, সবুজ শাকসবজি বেশি করে খাওয়ার প্রতিও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ঘরের মধ্যে থেকেই চিকিৎসকদের দুটি ই-মেইলে পাঠানো উপদেশ বার্তা মেনে চলতে হবে ক্রিকেটারদের। দেবাশিস চৌধুরী জানান, ক্রিকেটারদের কারও কোনো সমস্যা হলে যোগাযোগ করছেন তারা। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটাররের মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেয়নি। নিরাপদে ও সুস্থ আছেন ক্রিকেটাররা। এরই মধ্যে জাতীয় দলের নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন ক্রিকেটাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন এই দুঃসময়ে মানসিকভাবে শক্ত থাকার। বিশ্বের বড় বড় তারকা ফুটবলাররাও এখন ঘরে বসে আছেন। ঘরে থেকেই নিজেদের ফিটনেস ধরে রাখার চেষ্টা করছেন। এক সময় দুর্যোগ কেটে যাবে। মাঠে ফিরবে খেলা। প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে গ্যালারি। এ প্রত্যাশায় সবাই।

advertisement