advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই স্বাস্থ্য বিভাগের দরপত্র গ্রহণ!

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি
৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২০ ০০:৩৫
advertisement

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মধ্যেও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ২০১৯-২০ অর্থবছরের এমএসআর (মেডিক্যাল ও সার্জিক্যাল রিকুইজিট) সামগ্রী ক্রয়ের জন্য দরপত্র গ্রহণ করেছে। গতকাল সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভাঙ্গুড়া থানা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে পৃথকভাবে দৃশ্যমান বাক্সে দরপত্র গ্রহণ করা হয়। এ নিয়ে ঠিকাদার ও স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও করোনা ভাইরাসের মধ্যে দরপত্র গ্রহণকে স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে বিধি মোতাবেক হয়েছে। কিন্তু এমন এমএসআর দরপত্র বাতিল করা হয়েছে অনেক উপজেলায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৯-২০ অর্থবছরের এমএসআর (মেডিক্যাল ও সার্জিক্যাল রিকুইজিট) সামগ্রী ক্রয় করতে ৬টি গ্রুপে ঠিকাদারদের কাছ থেকে দরপত্র আহ্বান করা হয় চলতি বছরের ১২ মার্চ। সেই দরপত্র বিক্রয় চলে ২৬ মার্চ দুপুর ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। আর দরপত্র গ্রহণের তারিখ ছিল ২৯ মার্চ ২০২০। কিন্তু সারাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ করতে ২৬ তারিখ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত গণজমায়েত নিষেধ এবং বিশেষ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এ অবস্থায় সারাদেশের ন্যায় ভাঙ্গুড়াতেও অঘোষিত লকডাউন চলছে। অথচ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ পূর্বনির্ধারিত সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২৯ মার্চই দরপত্র গ্রহণ করে। গতকাল এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়েই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে দরপত্র গ্রহণের কাজ করেছি।

এ বিষয়ে ইউএনও সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, কারোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ও এমএসআর দরপত্র কমিটির আহ্বায়ককে তার ঊর্র্ধ্বতন অথরাইজের যথাযথ পরামর্শ নিয়ে কাজ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

advertisement