advertisement
advertisement

নেত্রকোনা-ঈশ্বরগঞ্জ হাইওয়ে
অর্ধশতাধিক বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই চলছে নির্মাণকাজ

মশিউর রহমান কাউসার গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)
৩০ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২০ ০০:৩৫
advertisement

মাঝখানে অর্ধশতাধিক বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই চলছে নেত্রকোনার সঙ্গে ময়মনসিংহের গৌরীপুর হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ (ভায়া নেত্রকানার বিশিউড়া) সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নতুন হাইওয়ে নির্মাণকাজ। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণে একাধিকবার আবেদন ও অবগত করা হলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। এদিকে প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সময়ে সম্পন্ন করতে খুঁটিগুলো রেখেই সড়কের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ঠিকাদার। এ নিয়ে স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

নেত্রকোনা সওজ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নভেম্বর ময়মনসিংহের সার্কিট হাউসের জনসভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ময়মনসিংহের অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের সঙ্গে ২৬১ কোটি টাকা ব্যয়ে উল্লিখিত নতুন সড়ক নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। তখন থেকে কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রানা বিল্ডার্স (প্রা.) লিমিটেড-মেসার্স রিজভী কনস্টাকশন-মোজাহার এন্টারপ্রাইজ (প্রা.) জেভি।

স্থানীয়রা জানায়, সড়কের মাঝখানে অর্ধশত পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ও পিডিবির খুঁটি রেখেই কাজ সম্পন্ন করতে যাচ্ছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো। রাস্তা ঘেঁষেও রয়েছে অনেক খুঁটি। এসব খুঁটি অপসারণ না করে সড়কের নির্মাণকাজ সম্পন্ন করলে প্রতিনিয়িত দুর্ঘটনার সম্মুখীন হতে হবে জনসাধারণকে।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার হোসেন আহমেদ পান্না জানান, সড়কের মাঝখানের বিদ্যুতের খুঁটি অপসারণের জন্য নেত্রকোনা সওজ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর একাধিকবার আবেদনের পাশাপাশি মৌখিকভাবে অবগত করা হয়েছে। কিন্তু এখনো খুঁটিগুলো অপসারণ করা হয়নি। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে কাজ শেষ করতে বাধ্য হয়ে সড়কে খুঁটি রেখেই কাজ চলছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে নেত্রকোনা সওজ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুল আলম জানান, বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো দ্রুত অপসারণের জন্য সংশ্লিষ্ট পিডিবি ও পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের কাছে সার্বিক ব্যয়ের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। কিন্তু এখনো খুঁটিগুলো অপসারণ করা হয়নি। এতে সড়ক নির্মাণকাজে স্বাভাবিক গতি ব্যাহত হচ্ছে। তিনি জানান, বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণের পর সড়কের কার্পেটিং হবে।

ময়মনসিংহ পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ৩-এর জেনারেল ম্যানেজার সোহেল পারভেজ জানান, উল্লিখিত সড়কে বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণের ব্যয় পরিশোধ করা হয়েছে কি না, এ বিষয়টি তার জানা নেই। তিনি বলেন, ফাইল দেখে এ বিষয়ে পরে জানানো হবে।

advertisement